বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক : ইংরেজি দৈনিক এশিয়ান এজ রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) প্রতিনিধি ও আইন বিভাগের মাস্টার্সের শিড়্গার্থী সাকিব আল হাসান লাঞ্ছিত এবং তার হলের সিট অবৈধভাবে দখলের প্রতিবাদে শাখা ছাত্রলীগকে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়েছে ক্যাম্পাসে কর্মরত সাংবাদিকরা। নির্ধারিত সময়ে শাখা ছাত্রলীগকে ড়্গমা চাওয়া এবং জড়িত ছাত্রলীগের নেতাদের বিরম্নদ্ধে সাংগাঠনিক ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানান সাংবাদিকরা।
মঙ্গলবার গভীর রাতে বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক, রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি ও প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক স্বাড়্গরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। তাদের আল্টিমেটামের লিখিত কপি শাখা ছাত্রলীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক মঈনুদ্দীন রাহাত গ্রহণ করেছেন।
সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সাংবাদিক নেতারা বলেন, ছাত্রলীগ কর্তৃক এর আগেও বিভিন্ন সময় সাংবাদিকদের মারধর ও হুমকি-ধামকি দেওয়ার ঘটনা ঘটেছে। কিন্তু ছাত্রলীগের পড়্গ থেকে তেমন কোনো পদড়্গেপ নেওয়া হয়নি। যার ফলে কিছু ছাত্রলীগ নেতাকর্মী উদ্যত হয়েছে। তারা সকলের সাথে খারাপ আচরণ, মারপিট, হলে সিট দখল-সিট বাণিজ্য, চাঁদাবাজির মতো নেতিবাচক কাজে লিপ্ত হচ্ছে। এতে ছাত্রলীগ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর নেতিবাচক প্রভাব পড়ছে। স্বাধীনভাবে পেশাদারি কাজে বাধাগ্রস্থ হচ্ছে সাংবাদিকতার। এমতাবস্থায় সাকিব আল হাসানের সাথে ঘটে যাওয়া কর্মকা-ের জন্য ছাত্রলীগকে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দেওয়া হলো। এ সময়ের মধ্যে শাখা ছাত্রলীগ ড়্গমা না চেলে এবং জড়িতদের বিরম্নদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা না দিলে কঠোর কর্মসূচিতে যাবে বলেও জানানো হয় সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে।
জানতে চাইলে ছাত্রলীগের সভাপতি সাধারণ সম্পাদক ফয়সাল আহমেদ রম্ননু বলেন, ‘সভাপতিকে নিয়ে দ্রম্নতই সাংবাদিকদের সাথে আলোচনায় বসবো।’ গত সোমবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শহিদ হবিবুর রহমান হলের ২২৪ নম্বর কড়্গ থেকে সাকিবকে বের করে দেন আইন অনুষদ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মিনহাজুল ইসলাম। এ সময় তার সঙ্গে ১৫-২০ জন ছাত্রলীগ নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। সিট হল প্রশাসন সাকিব আল হাসানকে বরাদ্দ দিলেও তাকে সরিয়ে ছাত্রলীগ নেতা তার জুনিয়র একজনকে অবৈধভাবে ওই সিট তোলার চেষ্টা করেন। সাকিব প্রতিবাদ করলে তাকে লাঞ্ছিত করে মিনহাজুল। পরে শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক হলে গিয়ে প্রশাসনের সাথে বৈঠক করেন। তবে সাকিবকে তার সিট ফেরত দেয়নি ছাত্রলীগ।