এফএনএস: রাজধানীর পলৱবীর বাউনিয়াবাধ এলাকার জামিয়া কুরআনিয়া তালিমিয়া মহিলা মাদ্রাসার ছাত্রী শাজমিন (১৩) গত ৮ দিন ধরে নিখোঁজ রয়েছে। গতকাল রোববার নিখোঁজ শাজমিনের মা শিল্পী আক্তার বলেন, মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ একেকবার একেক কথা বলছে। একবার বলছে, আমাদের সঙ্গে দেখা করতে এসেই সে আর ফিরে যায়নি। আবার বলছে, আমার মেয়ের সঙ্গে জ্বিন আছে। তাকে জ্বিনে নিয়ে গেছে।
একেক সময় তারা একেক রকম কথা বলছে। তিনি বলেন, মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষের কাছে আমি ওই দিনের (৩১ আগস্ট) সিসিটিভি ফুটেজ দেখতে চেয়েছিলাম। তারা বলছে, বড় হুজুর হজে গেছে। তিনি আসার পর ফুটেজ দেখানো হবে।
এরাই আবার সাংবাদিকদের বলছে, যে সময় আমার মেয়ে মাদ্রাসা থেকে বের হয়েছে, সেই সময় মাদ্রাসা পরিষ্কার করা হচ্ছিল। এ কারণে ক্যামেরা বন্ধ করে রাখা হয়েছিল। পরে ভুলে আর সিসি ক্যামেরা চালানো হয়নি। এই মাদ্রাসার লোকজন আমার মেয়েকে কিছু করেছে। তা না হলে একেক সময় একেক কথা বলবে কেন? শাজমিনের বাবা মো. শরীফ বলেন, চারবছর আগে এই মাদ্রাসায় পড়ালেখা করানোর জন্য আমার মেয়েকে ভর্তি করি।
গত ৩১ আগস্ট আমাকে মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ মোবাইল ফোনে জানায়, আমার সঙ্গে দেখা করার জন্য নাকি সকালে সে মাদ্রাসা থেকে বের হয়েছে। কিন’ এখনও ফিরে আসে নাই। তিনি বলেন, এ বিষয়ে ১ সেপ্টেম্বর পলৱবী থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছি। আট দিন পার হয়ে গেল এখন পর্যন্ত আমার মেয়েকে খুঁজে পাইনি। পলৱবী থানার ওসি নজর্বল ইসলাম বলেন, হারিয়ে যাওয়া মাদ্রাসাছাত্রীকে খুঁজে পাওয়ার চেষ্টা অব্যাহত আছে।