মোহনপুর প্রতিনিধি: মোহনপুরে বিয়ে না করায় প্রেমিকের বাড়িতে ঢুকে প্রেমিকের সামনে বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন কলেজছাত্রী জরিনা খাতুন (২১)।
মৃত কলেজছাত্রী জরিনা খাতুন মোহনপুর উপজেলার হরিহরপুর গ্রামের বদর উদ্দিনের মেয়ে। তিনি পবার নওহাটা মহিলা ডিগ্রি কলেজের দ্বাদশ শ্রেণিতে পড়ালেখা করতেন। প্রেমিক মাহাবুর রহমান (২২) একই উপজেলার মাটিকাটা গ্রামের আব্দুল মান্নানের ছেলে। রাজশাহী নিউ গভ: ডিগ্রি কলেজের দর্শন বিভাগের ছাত্র। কলেজছাত্রী জরিনা খাতুন ছিলেন মাহাবুর রহমানের সম্পর্কে ফুফাতো বোন। ওই সূত্র ধরে তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে উঠে।
মৃত কলেজছাত্রীর ভাই শাওন জানান, বুধবার সকাল ৯টার সময় তার বোন জরিনা খাতুন (২১) কলেজে যাওয়ার কথা বলে বাড়ি থেকে বের হন। বেলা ৩টার সময় তারা জানতে পারেন জরিনা খাতুন মাহাবুর রহমানের বাড়িতে বিষপান করার পর রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মারা গেছে।
সরেজমিনে মাটিকাটা গ্রামে গিয়ে স্থানীয় লোকজনের সাথে কথা বলে জানা গেছে, মৃত কলেজছাত্রী জরিনা খাতুন বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে বিয়ের দাবি নিয়ে প্রেমিক মাহাবুর রহমানের বাড়িতে আসেন। ওই সময় মাহাবুর রহমানসহ তার বাবা-মাসহ পরিবারের অন্য সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। কিনত্মু মাহাবুর রহমান তাকে বিয়ে করতে অস্বীকার করলে সবার সামনে বিষপান করেন কলেজছাত্রী জরিনা খাতুন। কলেজছাত্রীর পরিবারের লোকজনকে না জানিয়ে প্রেমিক মাহাবুর রহমানের পরিবারের লোকজন জরিনা খাতুনকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। এরপরে সেখানে কলেজছাত্রী মারা যান। ঘটনার পর প্রেমিক মাহাবুর রহমান কৌশলে পালিয়ে যান। মারা যাওয়ার খবর পেয়ে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ছুটে যান কলেজছাত্রীর পরিবারের লোকজন। এ ব্যাপারে রাজপাড়া থানায় ইউডি মামলা হয়েছে।