স্পোর্টস ডেস্ক: জয়ের ধারায় ফেরার লক্ষ্য নিয়েই আফগানিস্তানের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টে মাঠে নামবে স্বাগতিক বাংলাদেশ। আজ বৃহস্পতিবার জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়ামে সকাল দশটায় শুর্ব হবে ম্যাচটি।
ম্যাচ পূর্ব এক সংবাদ সম্মেলনে গতকাল সাকিব বলেন, এক রান না একশ রানে জিতলাম সেটা বড় কথা নয়, ম্যাচ জয়ই গুর্বত্বপূর্ণ। এ ম্যাচটি অত্যন্ত গুর্বত্বপূর্ণ।
টেস্ট ক্রিকেটে সামপ্রতিক বছরগুলোতে বাংলাদশ দলের সাফল্যের মূলে রয়েছে স্পিনাররা। যে কারণে টিম ম্যানেজমেন্ট স্পিন সহায়ক পিচ তৈরী করে আসছে।
আফগানিস্তান দলে বিশ্বমানের স্পিনার থাকলেও এ ম্যাচেও সেই স্পিন সহায়ক পিচই থাকেব বলে ধারনা করা হচ্ছে। চার স্পিনার নিয়ে গড়া বাংলাদেশ দলের আক্রমণের বির্বদ্ধে প্রস’ত আফগান স্পিনাররাও।
বাংলাদেশের বিপক্ষে নিজ দল আন্ডারডগ বলে স্বীকার করেছেন আফগানস্তিান কোচ এন্ডি মোলস। তবে বাংলাদেশের বিপক্ষে হুমকি দিয়ে বলেছেন একটি জয় আফগানিস্তান ক্রিকেটকে বদলে দিতে পারে।
২০০০ সালে মর্যাদা পাওযার পর এ পর্যন্ত ১১৪টি টেস্ট খেলেছে বাংলাদেশ দল। যার মধ্যে জিতেছে ১৩টি। জয়ী হওয়া ম্যাচগুলোর শেষ ছয়টি এসেছে ২০১৬ সালের পর। পরাজিত হয়েছে ৮৫ টেস্টে, ড্র করেছে ১৬টি।
গত বছর মর্যাদা পাওয়ার পর আফগানিস্তান মাত্র দুইটি টেস্ট খেলেছে। অভিষেক টেস্টে ভারতের কাছে পরাজিত হয়েছে ইনিংস ও ২৬৫ রানে। দ্বিতীয় ম্যাচটি জিতেছে সাত উইকেটে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে।