স্টাফ রিপোর্টার: ২৬ কোটি ৭৫ লাখ টাকা ব্যয়ে মহানগরীর বিলসিমলা রেলক্রসিং হতে কাশিয়াডাঙ্গা মোড় পর্যনত্ম বাইসাইকেল লেনসহ সড়ক চার লেনে উন্নীতকরণ কাজের উদ্বোধন করা হয়েছে।
মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় বহরমপুর মোড়ে ১৭৩ কোটি টাকার রাজশাহী মহানগরীর বিভিন্ন গুরম্নত্বপূর্ণ রাসত্মার উন্নয়ন প্রকল্পের আওতায় এ কাজের ১ম অংশের উদ্বোধন করেন সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রম্নজ্জামান লিটন।
উলেস্নখ্য, ২৬ কোটি ৭৫ লাখ টাকা ব্যয়ে ৩০ ফুট প্রশসত্ম রাসত্মাটি ৮০ ফুটে উন্নীত করা হবে। রাখা হয়েছে ড্রেন, ফুটপাত, ডিভাইডারসহ সাইকেল লেন। ১ম অংশে মোট রাসত্মার দৈর্ঘ্য ২ দশমিক ১২ কিলোমিটার, ৪ ফুট চওড়া ডিভাইডারসহ উভয় পাশে ২৩ ফুট করে পৃথক দুটি লেন থাকবে। এছাড়া উভয় পাশে ১০ ফুট চওড়া ফুটপাত এবং রাসত্মার দড়্গিণপার্শ্বে ৭ ফুট ৮ ইঞ্চি চওড়া বাই সাইকেল লেন রাখা হয়েছে এছাড়া রাসত্মার উভয় পার্শ্বে সাড়ে ৩ ফুট চওড়া ড্রেন রাখা হবে। প্রকল্প বাসত্মবায়নকারী প্রতিষ্ঠান বিটিসি-এইচই (জেভি)।
এ উপলড়্গে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মেয়র বলেন, রাজশাহীতে আনত্মর্জাতিক মানের রাসত্মা নির্মাণ কাজ শুরম্ন হয়েছে। আগামীতে এ রকম রাসত্মা নির্মাণ অব্যাহত থাকবে, যা সময়ের দাবি। যার সুফল ভোগ করবে মহানগরবাসী। এ নগরীর উন্নয়নে ৩ হাজার কোটি টাকার প্রকল্প দাখিল করা হয়েছে। আশা করছি আগামী ৩/৪ মাসের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী প্রকল্পটির অনুমোদন দিবেন। এই প্রকল্পটি অনুমোদিত হলে আরও ব্যাপকভাবে পাল্টে যাবে রাজশাহী।
নানা দিক দিয়ে রাজশাহী নগরীকে নিরাপদে রাখতে চাই আমি।
তিনি আরও বলেন, ডেঙ্গু প্রতিরোধে নানাবিধ উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। সারাদেশে এর প্রাদূর্ভাব ছড়িয়ে পড়লেও রাজশাহীতে তেমনটি দেখা যায়নি। সকলের প্রচেষ্টায় এটি নিয়ন্ত্রণ রাখা সম্ভব হয়েছে। আগামীতে এ বিষয়ে আরও সচেতন হয়ে এটিকে নিয়ন্ত্রণে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। ব্যাপক কর্মসংস’ান সৃষ্টিতে এ অঞ্চলে নতুন নতুন শিল্পাঞ্চল গড়ে তোলা হবে। প্রধানমন্ত্রী ইতোমধ্যে তিনটি শিল্পাঞ্চল গড়ার অনুমোদন দিয়েছেন।
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন প্রকল্প পরিচালক রাসিকের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী খন্দকার খায়রম্নল বাশার। রাসিকের নগর অবকাঠামো উন্নয়ন স’ায়ী কমিটির সভাপতি ২১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর নিযাম উল আযীম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে রাসিকের প্যানেল মেয়র-১ ও ১২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবুসহ রাসিক কর্মকর্তা ও স’ানীয় আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপসি’ত ছিলেন।
এদিকে, পদ্মা নদীর ধারে লালন শাহ পার্কে সাড়ে ১৪ হাজার বৃড়্গরোপণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেছেন রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রম্নজ্জামান লিটন। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টায় রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন এবং ব্র্যাক আরবান ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রামের যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন মেয়র।
মেয়র খায়রম্নজ্জামান লিটন বলেন, পদ্মা নদীর ধারে যে গাছগুলো লাগানো হচ্ছে, পরবর্তীতে এটি সবুজ বেষ্টনী হিসেবে কাজ করবে। উষ্ণ মৌসুমে তাপ, ঝড় মৌসুমে নদীর চরের বালু শহরে প্রবেশের ড়্গেত্রে বাধা হবে গাছগুলো। এতে শহর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকবে।
‘জীবনের স্পন্দন বৃড়্গ’ এই সেস্নাগানকে সামনে রেখে আয়োজিত বৃড়্গরোপণ অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন রাসিকের প্যানেল মেয়র-১ ও ১২ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবু। বিশেষ অতিথি ছিলেন সাবেক ভারপ্রাপ্ত মেয়র ও ৯নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর রেজাউন নবী দুদু।
উলেস্নখ্য, রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন এবং ব্র্যাক আরবান ডেভেলপমেন্ট প্রোগ্রামের যৌথ উদ্যোগে এই সাড়ে ১৪ হাজার বৃড়্গরোপণ করা হচ্ছে। গাছগুলোর মধ্যে রয়েছে মেহেগুনি, কড়ই, নারিকেল, আম, রাজকড়ই, নিম, অর্জুন, হরতকি, বহেড়া, জাম্বুরা ইত্যাদি।
অপরদিকে, মাদকবিরোধী গণসচেতনতা বৃদ্ধিতে নগর ভবনের প্রবেশ দ্বারে ডিজিটাল ডিসপেস্ন বোর্ড (কিউস্ক) স’াপন করা হয়েছে। মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর রাজশাহী বিভাগীয় কার্যালয়ের উদ্যোগে প্রদানকৃত ডিসপেস্ন বোর্ডটি মঙ্গলবার বিকেলে উদ্বোধন করেন সিটি কর্পোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রম্নজ্জামান লিটন।
মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর রাজশাহী বিভাগীয় কার্যালয়ের পড়্গ থেকে জানানো হয়, মাদকবিরোধী গণসচেতনতা বৃদ্ধিতে রাজশাহী গুরম্নত্বপূর্ণ অফিসে ডিজিটাল ডিসপেস্ন বোর্ড স’াপন করা হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় নগর ভবনে এর উদ্বোধন করা হলো। এই ডিসপেস্ন বোর্ডে মাদক বিরোধী বিভিন্ন নাটক, সেস্নাগান ও স্টিল ছবি প্রদর্শিত হবে।