রাজধানী ঢাকা থেকে ডেঙ্গু ছড়িয়ে পড়েছে সারাদেশে। প্রতিদিনই দুয়েকজন করে মারা যাচ্ছে ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে। ডেঙ্গুর বাহক এডিস মশা। অথচ রাজশাহী নগরীর পদ্মা আবাসিক এলাকার লেকটিই হয়ে উঠেছে মশার প্রজননৰেত্র। পত্রিকায় খবরটি পড়ে নগরবাসী হতবাক।
পদ্মা আবাসিক এলাকায় অভিজাত লোকজনেরই বসবাস। সেখানকার লেকেরই যে এমন দশা সেটা বাইরে থেকে বোঝা মুশকিল। লেকের স্বচ্ছ পানির ওপর আগাছা-ঘাসের আস্তরণ। তার ফাঁকে ফাঁকে ঝাঁকে ঝাঁকে মশা ঘটাচ্ছে বংশ বিস্তার।
ভারত সরকারের অর্থায়নে লেকটির সংস্কার কাজ করছে রাজশাহী সিটি করপোরেশন (রাসিক)। দীর্ঘদিন ধরে থেমে থেমে চলা কাজের কারণে লেকের ধারে ময়লা আবর্জনা জমে উঠতে শুর্ব করছে। যা পানিকে দূষিত করছে। আর লেকের স্বচ্ছ পানি ঢেকে গেছে আগাছা-ঘাস-কচুরিপানায়। হয়ে উঠেছে মশার নিরাপদ প্রজননৰেত্র।
আবাসিক এলাকার পাশেই ভদ্রা বস্তি। সেখানে পানির ব্যবস’া অপ্রতুল। তাই লেকের পানিতেই গোসলসহ গৃহস’ালী কাজ চলে। মশার জ্বালায় অসি’র বস্তির বাসিন্দারা। এ পর্যন্ত সেখানে মশা মারার কোনো উদ্যোগ দেখেনি কেউ। আবর্জনা পরিষ্কারেরও নেই কোনো আয়োজন।
তবে লেকের সৌন্দর্যবর্ধনে সংস্কার কাজে প্রচুর টাকা খরচ হচ্ছে। অথচ পানি ও পরিবেশ পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে কারোই নজর নেই। রাসিকের পরিচ্ছন্নতা কর্মকর্তার কথা থেকেই এটা পরিষ্কার। তার কথা, লেকটির পানি ময়লাযুক্ত কি-না তা আমাদের জানা নেই। নগরকর্তৃপৰের এমন ভূমিকা মোটেই কাম্য নয়। ডেঙ্গু নিয়ে এত হইচইয়ের মধ্যেও মশার এমন প্রজননৰেত্র নিরাপদ থাকাটা দুঃখজনকই বটে! অবিলম্বে এখানে মশা নিধন ও পরিচ্ছন্ন অভিযান দেখতে চায় নগরবাসী।