স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীতে সড়ক দূর্ঘটনায় আহত এক পুলিশ সদস্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন। গতকাল রোববার সন্ধ্যায় তিনি মারা যান। এরআগে গত শনিবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে প্রেমতলি পুলিশ তদনত্ম কেন্দ্রের সামনে একটি বেপরোয়া মোটরসাইকেল তাকে ধাক্কা দিলে তিনি গুরম্নতর আহত হন। নিহত পুলিশ সদস্য নওগাঁর মান্দা থানা এলাকার তনির উদ্দিনের ছেলে আবু বক্কর (৪০)। এদিকে এ ঘটনায় মোটরসাইকেল চালক সোহেল রানা ওরফে পিন্টুও আহত হয়েছেন। তিনি রামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। তার বাড়ি গোদাগাড়ি মাদারপুর গ্রামে।
রামেক হাসপাতাল ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, শনিবার রাত ১২টার দিকে প্রেমতলি পুলিশ তদনত্ম কেন্দ্রের সামনে দাড়িয়ে ছিলেন পুলিশ সদস্য আবু বক্কর। এ সময় দ্রম্নতবেগে আসা মোটরসাইকেল চালক পিন্টু ওই দিক দিয়ে বাড়ির ফেরার পথে পুলিশ সদস্যকে ধাক্কা দিলে দু’জনেই রাসত্মায় ছিটকে পড়েন। এতে করে উভয়েই গুরম্নতর আহত হন। আহদেরকে উদ্ধার করে রাত ১টা ৪০ মিনিটে রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তবে পুলিশ সদস্য অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে আইসিইউ’তে নেয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল সন্ধ্যা ৬টার দিকে তিনি মারা যান।
এ ব্যাপারে জেলা পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর) ইফতে খায়ের আলম বলেন, চালক বেপরোয়াভাবে মোটরসাইকেল চালানোর কারণে এ দূর্ঘটনা ঘটেছে। আহত পুলিশ সদস্যর মৃত্যু হয়েছে লাশটি ময়না তদনত্ম শেষে তার পরিবারের কাছে হসত্মানত্মর করা হবে। এছাড়াও চালক বর্তমানে রামেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এক প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, বিষয়টি নিয়ে তদনত্ম চলছে। চালকের বিষয়ে এখনো কোন সিদ্ধানত্ম গ্রহণ করা হয়নি।