এফএনএস: বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপির ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ রোববার । ১৯৭৮ সালের ১ সেপ্টেম্বর দলটি প্রতিষ্ঠা করেন জিয়াউর রহমান। দলীয় প্রধান খালেদা জিয়া কারাগারে থাকায় দুই বছর ধরে তাঁকে ছাড়াই বিএনপিকে প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করতে হচ্ছে। বিএনপির ওয়েবসাইট থেকে প্রাপ্ত তথ্য মতে, দল প্রতিষ্ঠার আগে ১৯৭৭ সালের ৩০ এপ্রিল জিয়াউর রহমান তার ‘সামরিক শাসনকে ‘বেসামরিক’ করার উদ্দেশে শুরম্ন করেন ১৯ দফা কর্মসূচি।
এরপর ১৯৭৮ সালের ১ সেপ্টেম্বর বিকেল ৫টায় রমনা রেসেত্মারাঁয় এক সংবাদ সম্মেলনে তৎকালীন রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের আনুষ্ঠানিক ঘোষণাপত্র পাঠের মাধ্যমে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি যাত্রা শুরম্ন করে। সংবাদ সম্মেলনে নতুন দলের আহ্বায়ক কমিটির চেয়ারম্যান হিসেবে তিনি প্রথমে ১৮ জন সদস্যের নাম ঘোষণা করেন। পরে ১৯৭৮ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর ওই ১৮ জনসহ ৭৬ সদস্য বিশিষ্ট আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়।
যদিও বিএনপি গঠন করার আগে জাতীয়তাবাদী গণতান্ত্রিক দল (জাগদল) নামে আরেকটি দল তৎকালীন উপ-রাষ্ট্রপতি বিচারপতি আবদুস সাত্তারকে সভাপতি করে গঠিত হয়েছিল। ২৮ আগস্ট ১৯৭৮ সালে নতুন দল গঠন করার লক্ষ্যে জাগদলের বর্ধিত সভায় ওই দলটি বিলুপ্ত ঘোষণা হয়। জিয়াউর রহমানের মৃত্যুর পর তাঁর সহধর্মিণী খালেদা জিয়া ৩৬ বছর ধরে বিএনপির হাল ধরে আছেন। কিন্তু বর্তমানে তিনি কারাগারে। অন্যদিকে ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান দীর্ঘদিন লন্ডনে প্রবাসী।
এমন পরিস্থিতিকে বিশেস্নষকদের কেউ কেউ ‘নাজুক’ হিসেবে উলেস্নখ করলেও দলটির সবচেয়ে বড় সফলতা হলো-দেশের অন্যতম বড় দল আওয়ামী লীগের প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী এখনো বিএনপিই।
কর্মসূচি: ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে বিভিন্ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে করা হয়েছে। এর অংশ হিসেবে রোববার সকাল ১০টায় দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা জানানো হবে। এদিন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরম্নল ইসলাম আলমগীরসহ দলের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ এবং সকল পর্যায়ের নেতাকর্মী শেরেবাংলা নগরে জিয়াউর রহমানের সমাধিতে শ্রদ্ধা জানানোর পর ফাতেহা পাঠে অংশ নেবেন।
একই দিন বিকেল ৩টায় বিএনপি’র উদ্যোগে রাজধানীর রমনাস্থ ইন্সটিটিউট অব ইঞ্জিনিয়ার্স-বাংলাদেশ মিলনায়তনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হবে। সভায় বিএনপি’র সিনিয়র নেতৃবৃন্দ বক্তব্য রাখবেন। আর ২ সেপ্টেম্বর বেলা ২টা থেকে দলটির নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে র‌্যালি বের করা হবে, যা শানিত্মনগর মোড় হয়ে আবার নয়াপল্টন কার্যালয়ের সামনে এসে শেষ হবে।
ফখরম্নলের শুভেচ্ছা: প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে দেশবাসীকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরম্নল ইসলাম আলমগীর। গতকাল শনিবার দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রম্নহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে মির্জা ফখরম্নল বলেন, বিএনপির ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে দলের সর্বসত্মরের নেতাকর্মী, শুভানুধ্যায়ী এবং দেশবাসীকে প্রাণঢালা শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানাচ্ছি।
আজ থেকে ৪১ বছর আগে দেশের এক চরম ক্রানিত্মকালে মহান স্বাধীনতার ঘোষক, বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবক্তা, বিশ্বনন্দিত নেতা, শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান এদেশের মানুষকে একদলীয় দুঃশাসনের করাল গ্রাস থেকে রক্ষার জন্য বিএনপি প্রতিষ্ঠা করেন। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই বিএনপি দেশ, দেশের মানুষের উন্নয়ন এবং বিশ্বের সব রাষ্ট্রের সঙ্গে সমমর্যাদার ভিত্তিতে সৌহার্দ্য ও বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক স্থাপনে নিরলস কাজ করে যাচ্ছে।
ফখরম্নল বলেন, বিএনপির ৪১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর এই মহান দিনে দলের সব পর্যায়ের নেতাকর্মীকে দলকে আরো গতিশীল করার ক্ষেত্রে মনেপ্রাণে কাজ করার জন্য প্রস্তুত থাকার আহ্বান জানাচ্ছি। বর্তমান দুঃসময়ে জনগণকে সংগঠিত করার কোনো বিকল্প নেই। দেশ আজ দুঃশাসনকবলিত। মানুষ ভয়াবহ নিরাপত্তাহীনতার মধ্যে দিনাতিপাত করছে। গুম-খুনের আতঙ্ক মানুষের নিত্যসঙ্গী।
আইন, বিচার, প্রশাসনকে সরকার কব্জার মধ্যে রাখার চেষ্টায় মরিয়া। আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীকে বেআইনি কাজ করতে বাধ্য করা হচ্ছে। ফলে সমাজে দেখা দিয়েছে বিপজ্জনক বিশৃঙ্খলা। খুন, নারী-শিশু নির্যাতন, অপহরণ, গুপ্তহত্যা ইত্যাদি অনাচারের মাত্রা বৃদ্ধি পেয়েছে। কারণ সরকার যেখানে জনগণের প্রতিপক্ষ সেখানে মানুষের জানমালের কোনো নিরাপত্তা থাকতে পারে না।
জনগণের নিরাপত্তা বিধানের জন্যই গণতন্ত্রকে ফিরিয়ে আনতে হবে। তিনি বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির আন্দোলন বেগবান করতে হবে। তিনি প্রতিহিংসার শিকার। কারণ তিনিই গণতন্ত্রের প্রতীক এবং জনগণের নাগরিক ও বাকব্যক্তি স্বাধীনতার পক্ষে প্রধান কণ্ঠস্বর। পাশাপাশি দেশের যেকোনো ক্রানিত্মলগ্নে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ থেকে অন্যায় ও জুলুমের বিরম্নদ্ধে রম্নখে দাঁড়ানোর প্রতি গুরম্নত্বারোপ করতে হবে। প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর এই দিনে আমি দেশবাসীকে বিএনপির পতাকাতলে ঐক্যবদ্ধ থাকার জন্য আহ্বান জানাই।