স্টাফ রিপোর্টার : আদালতে দুর্নীতি ও মাদক মামলার ক্ষেত্রে জিরো টলারেন্স নীতি ঘোষণা করা হয়েছে। গতকাল শনিবার রাজশাহীর চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের সম্মেলন কড়্গে মাসিক পুলিশ-ম্যাজিস্ট্রেসি সভায় এ ঘোষণা দেন সভার সভাপতি রাজশাহীর চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মেহেদী হাসান তালুকদার।
সভার শুরম্নতে ১৫ ও ২১ আগস্ট বঙ্গঁবন্ধসহ সকল শহীদদের প্রতি গভীর সমবেদনা জ্ঞাপন করে মোনাজাত করা হয়। সভায় পুলিশ কর্তৃক আসামী ধরার চব্বিশ ঘন্টার মধ্যে নিকটস্থ ম্যাজিস্ট্রেটের নিকট হাজির করার নির্দেশনা দেয়া হয়। তাছাড়া দ্রম্নত মামলা নিষ্পত্তির জন্য ডাক্তার সাড়্গী, পুলিশ সাড়্গী ও মাদক মামলার সাড়্গীদের হাজির করার উপর গুরম্নত্বারোপ করা হয়। এছাড়া মামলার গুরম্নত্বপূর্ণ কেস ডকেটসমূহ যথাযথভাবে সংরড়্গণ করার উপর জোর দেন উপস্থিত সদস্যবৃন্দ। সভায় উপস্থিত অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মাহমুদুল হাসান তার বক্তব্যে আদালত ও পুলিশের মধ্যকার সুসম্পর্ক ভবিষ্যতে অব্যাহত রাখার ও সার্বিক নিরাপত্তার বিষয়ে আশ্বাস প্রদান করেন। ডাক্তার জাহাঙ্গীর আলম, ডেপুটি সিভিল সার্জন ডাক্তার সাড়্গীদের উপস্থিতির বিষয়ে সভাকে আশ্বসত্ম করেন। ডাক্তার ইফতেখার মোঃ কুদরত-ই-খুদা, জুনিয়র কনসালটেন্ট, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সভায় মেডিকেল সনদ যথাসময়ে আদালতে উপস্থাপন ও তদনত্মকারী কর্মকর্তাকে সরবরাহের প্রতিশ্রম্নতি দেন। সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট নজরম্নল ইসলাম, আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডঃ লোকমান আলী, ডেপুটি জেল সুপার সাইফুল ইসলাম, মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের উপ পরিচালক লুৎফর রহমান, ট্রাফিক ইন্সপেক্টর নজরম্নল ইসলামসহ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেসিতে কর্মরত সকল ম্যাজিস্ট্রেট ও জেলা জজ আদালতে কর্মরত সহকারী জজসহ রাজশাহী জেলার সকল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাগণ। সভা পরিচালনা করেন অতিরিক্ত চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট জুয়েল অধিকারী।
সভাপতি আগষ্ট মাসকে শোকের মাস উলেস্নখ করে বঙ্গঁবন্ধু ও তার পরিবারের সকল শহীদদের স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন এবং দোয়া মাহফিলে অংশগ্রহণের জন্য সকলকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।