স্টাফ রিপোর্টার: নগরীতে রাতভর অভিযান চালিয়ে ছিনতাইকৃত মোবাইল উদ্ধার ও ছিনতাই কাজে ব্যবহত মোটরসাইকেলসহ তিন মোবাইল ছিনতাইকারিকে গ্রেপ্তার করেছে আরএমপি পবা থানা পুলিশ। গতকাল শুক্রবার ভোররাতে অভিযান চালিয়ে এদের গ্রেপ্তার করা হয়।
গ্রেপ্তারতরা হলেন, চন্দ্রিমা থানার আসাম কলোনীর বাবুর ছেলে মাহাদী, শাহমখদুম থানা এলাকার বড়বনগ্রাম ভাড়ালীপাড়ার মহাসিন আলীর ছেলে রাজু আহমেদ ও বোয়ালিয়া থানার ফুতকিপাড়া কালি মন্দির সংলগ্ন সাইদুজ্জামানের ছেলে তৌফিক জামান সরন। গতকাল দুপুরে আসামীদের আইনি প্রক্রিয়া শেষে জেল-হাজতে পাঠানো হয়েছে।
পবা থানা পুলিশ পরিদর্শক(তদনত্ম) আবুল কালাম আজাদ এর নেতৃত্বে এসআই মাহফুজুর রহমান, এএসআই মাহবুব সঙ্গীয় ফোর্সের সহযোগিতায় রাজশাহী মহানগরীর বিভিন্ন স’ানে অভিযান চালিয়ে ছিনতাইকৃত মোবাইল উদ্ধার, ছিনতাই কাজে ব্যবহৃত মোটরসাইকেলসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করে।
পুলিশ জানায়, গত ১৯ আগস্ট সন্ধ্যায় পবা থানা এলাকার বাগসারা গ্রামের রাজশাহী-বায়া-তানোর রাসত্মার ওপর থেকে ওই এলাকার বোরহান উদ্দিন ও তার পুত্র রোমান উদ্দিনকে চাকু দেখিয়ে জিম্মি করে একটি স্যামসং গ্যালাক্সি জে ৭ মোবাইল ছিনতাই করে ৩ ছিনতাইকারি। এরপর দ্রম্নত এ্যাপাচি মোটরসাইকেল যোগে পালিয়ে যায়। ছিনতাইকৃত মোবাইলের দাম ২৫ হাজার টাকা। ঘটনার দিন রাতেই রোমান পবা থানায় অজ্ঞাতনামা ৩ জনকে আসামী করে মামলা করেন। সোর্সের দেয়া তথ্যানুযায়ী গত বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে চন্দ্রিমা থানা পুলিশের সহযোগিতায় পবা পুলিশ বাসা থেকে মাহাদীকে গ্রেপ্তার করে। তার দেয়া তথ্যানুযায়ী এদিন রাত সোয়া তিনটার দিকে তৌফিক জামান সরনকে তার বাসা থেকে গ্রেপ্তার ও ছিনতাইয়ে ব্যবহৃত এ্যাপাচি মোটরসাইকেল জব্দ করা হয়। গ্রেপ্তারকৃতদের দেয়া তথ্যানুযায়ী ভোর পৌনে ছয়টার দিকে শাহমখদুম থানা পুলিশের সহযোগিতায় ছিনতাইকৃত মোবাইলসহ রাজু আহম্মেদকে তার বাসা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।