এফএনএস: দেশজুড়ে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রানেত্মর সংখ্যা কমছে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। গতকাল বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের দেওয়া তথ্যমতে, গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে ডেঙ্গুতে আক্রানত্ম হয়েছেন এক হাজার ১৮৯ জন। তবে চিকিৎসা শেষে বাসায় ফেরা রোগীদের অনত্মত পরবর্তী এক সপ্তাহ সতর্কতার সঙ্গে নিয়মকানুন মেনে চলার পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা। গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর সেন্ট্রাল হাসপাতালে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রানত্ম হয়ে শারমীন আক্তার নামের এক নারীর মৃত্যু হয়েছে।
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিসংখ্যান মতে, গত এক মাসের তুলনায় ডেঙ্গু জ্বরে আক্রানত্ম হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া রোগীর সংখ্যা কমেছে। তবে প্রতিদিন হাজারখানেক নতুন রোগী ডেঙ্গু জ্বরে আক্রানত্ম হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হচ্ছেন। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হিসাবমতে, চলতি বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ২৮ আগস্ট পর্যনত্ম ডেঙ্গু জ্বরে আক্রানত্ম হয়ে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন ৬৭ হাজার ২২১ জন। তাঁদের মধ্যে চিকিৎসা শেষে বাসায় ফিরে গেছেন ৬১ হাজার ৮২২ জন। অর্থাৎ সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন ৯২ শতাংশ রোগী। এদিকে বাসায় ফেরার পর দ্বিতীয়বার যেন ডেঙ্গু জ্বরে কেউ আক্রানত্ম না হন, সে জন্য সর্বোচ্চ সতর্ক থেকে নিয়ম মেনে চলার পরামর্শ দিচ্ছেন চিকিৎসকরা। এ ব্যাপারে হলি ফ্যামিলি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ডা. খন্দকার এজাজ আহমেদ বলেছেন, ভালো হওয়ার পর যিনি চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরেছেন, তাঁকে ৭ থেকে ১০ দিন সতর্ক থাকতে হবে, যাতে আবার মশা না কামড়ায়। কারণ, তাঁকে মশা কামড়ানোর পর যখন ওই মশা আরেকজনকে কামড় দেবে, তাঁরও ডেঙ্গু হওয়ার আশঙ্কা থাকে। রোগীদের জীবাণুটা কিছুদিন থেকে যায়। এদিকে হাসপাতাল ছেড়ে বাড়ি ফেরার তাড়ায় রয়েছে শিশুরা।
বিভিন্ন হাসপাতালের শিশুরা বলছে, হাসপাতালে থাকতে ভালো লাগছে না তাদের। এজন্য অভিভাবকরা অপেক্ষায় আছেন, কবে সনত্মান সুস্থ হয়ে যাবে, আর তাঁরাও নিশ্চিনেত্ম বাড়ি ফিরতে পারবেন।