এফএনএস: মন্ত্রিপরিষদ সচিবের দায়িত্ব পেতে যাচ্ছেন সেতু বিভাগের সচিব খন্দকার আনোয়ারম্নল ইসলাম, আর বিদায় নিয়ে বিশ্ব ব্যাংকে বিকল্প নির্বাহী পরিচালক হচ্ছেন মোহাম্মদ শফিউল আলম। এই দুটি নিয়োগ চূড়ানত্ম হয়েছে বলে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুসত্মফা কামাল গতকাল বুধবার সচিবালয়ে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।
জ্যেষ্ঠ সচিব শফিউল আলম ২০১৫ সালের ২৯ অক্টোবর থেকে জনপ্রশাসনের গুরম্নত্বপূর্ণ পদ মন্ত্রিপরিষদ সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তার সর্বশেষ চুক্তিভিত্তিক নিয়োগের মেয়াদ আর কয়েক মাস বাকি বলে মন্ত্রিপরিষদ সচিবের দায়িত্বে তিনি নতুন চুক্তিতে থাকবেন, নাকি নতুন কেউ আসবেন, তা নিয়ে আলোচনা চলছিল।
সরকারি ক্রয় সংক্রানত্ম মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠক শেষে উপস্থিত সাংবদিকদের প্রশ্নে অর্থমন্ত্রী বলেন, মন্ত্রিপরিষদ সচিব আরও বড় দায়িত্ব নিয়ে দেশের সেবার জন্য ওয়ার্ল্ড ব্যাংকের অলটারনেটিভ ডাইরেক্টর হচ্ছেন। এ বিষয়ে সব কিছু চূড়ানত্ম হয়ে গেছে। তাহলে পরবর্তী মন্ত্রিপরিষদ সচিব কে হচ্ছেন- জানতে চাইলে মুসত্মফা কামাল বলেন, “সেতু বিভাগের সিনিয়র সচিব খন্দকার আনোয়ারম্নল ইসলাম কেবিনেট সচিব হিসেবে নিয়োগ পেতে যাচ্ছেন। বিষয়টি সম্পর্কে মন্ত্রিপরিষদ সচিব শফিউল আলম বলেন, তিনিও খবরটি শুনেছেন। আগামী তিন বছরের জন্য ওয়াশিংটনে বিশ্ব ব্যাংক সদর দপ্তরে বাংলাদেশ মিশনের দায়িত্ব নিয়ে যাচ্ছেন তিনি।
তবে এই সংক্রানত্ম সরকারি প্রজ্ঞাপন এখনও হয়নি। কবে নাগাদ যোগ দেবেন- জানতে চাইলে শফিউল বলেন, ওয়াশিংটনে বিশ্ব ব্যাংকের প্রধান কার্যালয়ে বিকল্প নির্বাহী পরিচালক হিসেবে যোগ দিতে মাস-দুয়েক লাগার কথা। প্রসেস হলে নভেম্বর নাগাদ আশা করি, সম্ভাবনা। ১৯৫৯ সালে কঙবাজারে জন্ম নেওয়া শফিউল চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ইংরেজিতে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি নেওয়ার পর এলএলবিও করেন।
পরে যুক্তরাজ্যের বার্মিংহাম ইউনিভার্সিটি থেকে উন্নয়ন প্রশাসনে এমএসএস ডিগ্রি নেন তিনি। ১৯৮২ সালের বিসিএস ব্যাচের কর্মকর্তা শফিউল কর্মজীবনে রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের সচিব, জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ এবং বাংলাদেশ বনশিল্প উন্নয়ন করপোরেশন ও ভূমি আপিল বোর্ডের চেয়ারম্যানের দায়িত্বও পালন করেন।
সাবেক মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোশাররফ হোসেন ভুঁইয়া এখন বিশ্ব ব্যাংকে বাংলাদেশের বিকল্প নির্বাহী পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। শফিউল তার স্থলাভিষিক্ত হবেন। শফিউল বলেন, সেতু বিভাগের জ্যেষ্ঠ সচিব খন্দকার আনোয়ার নতুন মন্ত্রিপরিষদ সচিব হচ্ছেন বলে তিনিও শুনেছেন। সেক্ষেত্রে শফিউল ওয়াশিংটনে দায়িত্ব নিয়ে গেলে দুই মাসের মধ্যে মন্ত্রিপরিষদ সচিবের দায়িত্ব নেবেন খন্দকার আনোয়ার।
খন্দকার আনোয়ার ২০১১ সালের ১৩ নভেম্বর সেতু বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সচিব হিসেবে যোগ দেন। ২০১৩ সালে তিনি সচিব এবং ২০১৭ সালে জ্যেষ্ঠ সচিব হিসেবে পদোন্নতি পান। ১৯৮৩ বিসিএস ব্যাচের কর্মকর্তা আনোয়ার পড়াশোনা করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সমাজ কল্যাণে। ডেভলপমেন্ট পস্ন্যানিং এ তার একটি পোস্ট গ্রাজুয়েট ডিপেস্নামাও রয়েছে। খন্দকার আনোয়ারের স্ত্রী বেগম কামরম্নন নাহারও একজন সচিব। তিনি মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে রয়েছেন।