এফএনএস: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, দেশে সকল টেলিভিশন চ্যানেলের পরিপূর্ণ স্বাধীনতা রয়েছে। তিনি বলেন, সকল টেলিভিশন চ্যানেল পূর্ণ স্বাধীনতা ভোগ করছে। শেখ হাসিনা গতকাল বুধবার সকালে তাঁর তেজগাঁও কার্যালয়ে (পিএমও) বাংলাদেশ টেলিভিশন চ্যানেল মালিক সমিতির (এটিসিও) নেতৃবৃন্দের সঙ্গে সাক্ষাতকালে একথা বলেন।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে আগে কেবলমাত্র একটি টেলিভিশন চ্যানেল ছিল বিটিভি। আমরা ’৯৬ সালে সরকার গঠনের পর এটা উন্মুক্ত করে দিয়েছি (বেসরকারী খাতে)। তিনি বলেন, তাঁর সরকার সংবাদ প্রচারেও স্বাধীনতা দিয়েছে। বৈঠকের পরে প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব ইহসানুল করিম সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন।
বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল মালিকদের সংগঠন (এটিসিও) নেতৃবৃন্দ বলেছেন, তারা বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর মাধ্যমে সমপ্রচার শুরম্নর জন্য সংশিস্নষ্ট কতৃর্পক্ষের সঙ্গে আনত্মরিকতার সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছেন। কেবল টিভি সমপ্রচার কার্যক্রম ডিজিটাইজেশনের আওতায় এনে সকল চ্যানেলকে পে-চ্যানেলে রূপানত্মর করাসহ বিভিন্ন দাবিও এ সময় উপস্থাপন করেন তারা।
তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা এবং ইন্ডিপেনডেন্ট টেলিভিশন চ্যানেলে স্বত্তাধিকারী সালমান এফ রহমান এবং তথ্য সচিব আবদুল মালেক এ সময় উপস্থিত ছিলেন। অন্যান্যের মধ্যে এটিসিও চেয়ারম্যান এবং মাছরাঙা টেলিভিশনের স্বত্তাধিকারি অঞ্জন চৌধুরী, ডিবিসি চ্যানেলের স্বত্তাধিকারি ইকবাল সোবহান চৌধুরী, একাত্তর টিভির এডিটর ইন চিফ এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোজাম্মেল বাবু এবং সময় টেলিভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আহমেদ জোবায়ের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।