পাবনা প্রতিনিধি: জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জনের অভিযোগে দায়ের করা মামলায় পাবনা সদর উপজেলার সাব-রেজিস্ট্রার ইব্রাহিম আলীকে (৫৮) গ্রেপ্তার করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।
মঙ্গলবার দুপুরে পাবনা সদর থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত ইব্রাহিম ঈশ্বরদী উপজেলার রামচন্দ্রপুর গ্রামের মৃত ইরাদ আলী শেখের ছেলে। বর্তমানে তিনি ৯/৪, টোলারবাগ (২য় তলা), মিরপুর, ঢাকার বাসিন্দা।
দুদক পাবনার উপ-পরিচালক আতিকুর রহমান জানান, ইব্রাহিম আলী ২০০৯ সালে পাবনা সদরে সাব-রেজিস্ট্রার পদে চাকরিতে যোগদান করেন ও অদ্যবধি কর্মরত আছেন। দায়িত্ব পালন কালে ঘুষ ও দুর্নীতির মাধ্যমে ইব্রাহিম ও তার মেয়ে তানজিলা আফরিনের নামে বিপুল পরিমাণ জ্ঞাত আয় বহির্ভূত ৩ কোটি ১২ লাখ ৬৫ হাজার ৫০২ টাকার সম্পদ অর্জন করেছেন। এর মধ্যে ঘুষ ও দুর্নীতির মাধ্যমে অর্জিত অর্থ তিনি হসত্মানত্মর/রূপানত্মর করে জ্ঞাত আয়ের উৎসের সাথে অসঙ্গতিপূর্ণ ২ কোটি ৩৮ লাখ ১৪ হাজার ৯২৫ টাকার সম্পদ অর্জন ও দখলে রাখার অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশন আইন ও মানি লন্ডারিং প্রতিরোধ আইনে তার বিরুদ্ধে দারুস সালাম (ডিএমপি) থানায় ২০১৮ সালের ১৫ অক্টোবর মামলা দায়ের করে দুদক। মামলা নম্বর ২২। পরে আদালতের আদেশের গেলো মার্চ মাসে ইব্রাহিমের দুর্নীতি সংক্রানত্ম স’াবর ও অস’াবর সম্পদ ক্রোক করা হয় ।
মামলার তদনত্মকারী কর্মকর্তা দুদক প্রধান কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক শেখ গোলাম মাওলা বলেন, গ্রেপ্তারের পর ইব্রাহিম আলীকে ঢাকা মহানগর সিনিয়র স্পেশাল জজ আদালত ঢাকায় প্রেরণের জন্য পাবনার সিনিয়র স্পেশাল জজ ও দায়রা জজ আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।