স্টাফ রিপোর্টার: নগরীর কাজলা এলাকায় বিপস্নব নামে এক যুবককে হত্যার আসামি ফয়সাল কবির ওরফে রনি আহমেদকে (৩০) মৃত্যুদ-ে দ-িত করেছেন আদালত। একইসঙ্গে তাকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।
গতকাল রোববার রাজশাহীর দ্রম্নত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক অনুপ কুমার এ রায় ঘোষণা করেন। মৃত্যুদ-প্রাপ্ত রনি রাজশাহী মহানগরীর কাজলা কেডি ক্লাব মোড়ের এসএম হাবিবুর রহমানের ছেলে। মামলায় হাবিবুর রহমানও (৫০) আসামি ছিলেন। তবে তার বিরম্নদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় আদালত তাকে বেকসুর খালাস দিয়েছেন।
মামলার সংড়্গিপ্ত বিবরণে জানা যায়, ভিকটিম বিপস্নবের সাথে আসামি রনির বোনের ১০/১২ বছর পূর্বে বিয়ে হয়। ঘটনার চার বছর পূর্বে রনির সাথে স্ত্রীর ছাড়াছাড়ি হয়ে যায়। এছাড়াও প্রতিবেশি সাইদুরের সাথে বিপস্নবের পরিবারের জমিজমা নিয়ে বিরোধ থাকায় এবং ডিভোর্সের ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিপস্নব হোসেনকে (২৯) ২০১৭ সালের ৩ মার্চ বিকাল অনুমান সাড়ে ৪ টায় ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়। বিপস্নবের বাড়িও একই এলাকায়। তার বাবার নাম এরশাদ আলী। বিপস্নবকে হত্যার ঘটনায় নগরীর মতিহার থানায় তিনজনের বিরম্নদ্ধে মামলা করেন তার বড় ভাই আসাদ ওরফে বুলবুল। মতিহার থানার মামলা নং- ৮, তারিখ- ৩/৩/২০১৭। এই মামলায় ২৮/৯/ ২০১৭ ইং অভিযোগ পত্র দাখিল করা হয়। অভিযোগপত্রে আসামি সাইদুরকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছিল।
আদালতে রাষ্ট্রপড়্গের আইনজীবী এনত্মাজুল হক বাবু জানান, আসামি রনি গ্রেপ্তার হওয়ার পর উচ্চ আদালত থেকে জামিনে ছিলেন। মামলার যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের দিন থেকে তিনি পলাতক। তার অনুপস্থিতিতেই রায় ঘোষণা করা হয়েছে। তবে রায় ঘোষণার সময় রনির পিতা আসামি হাবিবুর রহমান আদালতে উপস্থিত ছিলেন। তার বিরম্নদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তিনি বেকসুর খালাস পেয়েছেন। মামলায় ২৭ জনের সাড়্গ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে আদালত এ রায় ঘোষণা করলেন। আসামি পড়্গে মামলাটি পরিচালনা করেন আইনজীবী মিজানুল ইসলাম।