স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীর পদ্মা নদীতে আবার ধীরে ধীরে পানি বাড়তে শুরম্ন করেছে। পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) বলছে, বৃষ্টিপাতে বিলম্ব হওয়ার কারণে আগামী সেপ্টেম্বর পর্যনত্ম নদীতে পানি কখনও একটু কমবে, কখনও বাড়বে। তবে পানি বৃদ্ধি নিয়ে আপাতত উদ্বেগের কিছু নেই।
রাজশাহী পাউবোর গেজ রিডার এনামুল হক জানান, গত ২ জুলাই থেকে পদ্মা নদীতে পানি বাড়তে শুরম্ন করে। এরপর পানি একটু একটু করে বাড়তেই থাকে। ২০ জুলাই পানির সর্বোচ্চ উচ্চতা হয় ১৫ দশমিক ৮৬ মিটার। তারপর থেকে পানি একটু একটু করে কমতে শুরম্ন করে।
গত ১৮ জুলাই পানি কমে দাঁড়ায় ১৫ দশমিক ০৭ মিটারে। তবে পরদিন থেকেই পানি আবার বাড়তে শুরম্ন করেছে। গত সোমবার সন্ধ্যা ৬টায় রাজশাহী মহানগরীর বড়কুঠি এলাকায় পদ্মার পানির উচ্চতা ছিল ১৫ দশমিক ১১ মিটার। গতকাল মঙ্গলবার ভোর ৬টায় পানির উচ্চতা পাওয়া যায় ১৫ দশমিক ২০ মিটার। আর বিকাল ৩টায় পানি বেড়ে হয় ১৫ দশমিক ২৫ মিটার। তবে রাজশাহীতে পদ্মার পানি এখনও বিপদসীমা থেকে অনেক দূরেই রয়েছে।
রাজশাহীতে পদ্মার পানির বিপদসীমা ১৮ দশমিক ৫০ মিটার। এর বেশি হলে বিপদসীমা অতিক্রম হিসেবে ধরা হয়। গেল ১৫ বছরে পদ্মা নদীর পানি বিপদসীমা অতিক্রম করেছে মাত্র দুই বার। এর মধ্যে ২০০৪ থেকে ২০১২ সাল পর্যনত্ম টানা ৯ বছর রাজশাহীতে পদ্মার পানি বিপদসীমা অতিক্রম করেনি।
কেবল ২০০৩ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর রাজশাহীতে পদ্মার সর্বোচ্চ উচ্চতা ছিল ১৮ দশমিক ৮৫ মিটার। সর্বশেষ ২০১৬ সালের ২৮ আগস্ট রাজশাহীতে পদ্মার পানির প্রবাহ উঠেছিল সর্বোচ্চ ১৮ দশমিক ৪১ মিটার। ২০১৭ পানি প্রবাহ উঠেছিলো ১৮ দশমিক ৪৬ মিটারে।
রাজশাহী পাউবোর দায়িত্বপ্রাপ্ত নির্বাহী প্রকৌশলী সৈয়দ সহিদুল আলম বলেন, পদ্মার পানি বিপদসীমার এখনও অনেক নিচে। সুতরাং এ নিয়ে উদ্বীগ্ন হওয়ার কিছু নেই। তিনি বলেন, পুরো সেপ্টেম্বর পর্যনত্ম পদ্মা নদীর পানি কখনও বাড়বে আবার কখনও কমবে। তবে বিপদসীমা অতিক্রম করার আশঙ্কা কম।