এফএনএস: সারাদেশে যথাযথ ভাবগাম্ভীর্য আর আনন্দ-উৎসাহের মধ্য দিয়ে উদযাপিত হয়েছে পবিত্র ঈদুল আজহা। সোমবার ঈদের দিন সকালে নামাজ আদায় শেষে মুসলিস্নরা দেশ, জাঁতি ও মুসলিম জাহানের শানিত্ম ও সমৃদ্ধি কামনা করেন। তারপর একে অপরের সঙ্গে কোলাকুলি করে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। আলস্নাহর সন’ষ্টি লাভের আশায় দেশের ধর্মপ্রাণ কোটি মানুষ ঈদগাহ, মসজিদ ও খোলা মাঠে ঈদের নামাজ আদায় করেন। রাজধানীতে সকাল ৭টায় জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমে প্রথম ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়। এরপর সকাল ৮টায় আরেকটি জামাত অনুষ্ঠিত হয়। ঈদুল আজহার প্রধান জামাত জাতীয় ঈদগাহে সকাল ৮টায় শুরম্ন হয়।
এ জামাতে রাষ্ট্রপতি, মন্ত্রিসভার সদস্য, কূটনৈতিকসহ গুরম্নত্বপূর্ণ ব্যক্তিরা নামাজ আদায় করেন। পরে তাঁরা একে অপরের সঙ্গে কোলাকুলি করে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। এতে ইমামতি করেন বায়তুল মোকাররম জাতীয় মসজিদের জ্যেষ্ঠ ইমাম মাওলানা মুহাম্মদ মিজানুর রহমান। নামাজ আদায় শেষে বাসায় ফিরে মহান আলস্নাহর অপার অনুগ্রহ লাভের আশায় ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা সামর্থ্য অনুযায়ী পশু কোরবানি করেন।
এদিন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ বঙ্গভবনে সর্বসত্মরের জনগণের সঙ্গে ঈদ শুভেচ্ছা বিনিময় করবেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা তাঁর সরকারি বাসভবন গণভবনে দলীয় নেতাকর্মী, বিচারক, বিদেশি কূটনীতিকসহ সর্বসত্মরের জনগণের সঙ্গে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে সরকারি-বেসরকারি ভবন ও বিদেশে বাংলাদেশ মিশনগুলোয় জাতীয় পতাকা উত্তোলন করা হয়েছে। এ ছাড়া ‘ঈদ মোবারক’ লিখিত ব্যানার ঢাকা মহানগরীর গুরম্নত্বপূর্ণ ট্রাফিক আইল্যান্ড ও লাইটপোস্টে প্রদর্শিত হচ্ছে। পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে সরকারি ভবন ও গুরম্নত্বপূর্ণ সামরিক স’াপনাগুলোতে আলোকসজ্জা করা হয়।