স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীতে আগামীকাল সোমবার পবিত্র ঈদুল আযহার প্রধান জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৮টায়। বরাবরের মতো এবারও রাজশাহীর হযরত শাহমখদুম (র.) কেন্দ্রীয় ঈদগাহ ময়দানে এই জামাত অনুষ্ঠিত হবে।
এতে ঈমামতি করবেন নগরীর জামিয়া ইসলামীয়া শাহমখদুম (র.) মাদ্রাসার অধ্যড়্গ মুফতি মাওলানা মো. শাহাদত আলী। জামাতের সহকারী হিসেবে থাকবেন নগরীর হেতেমখাঁ বড় মসজিদের পেশ ঈমাম ও খতিব মাওলানা মো. ইয়াকুব আলী।
জেলা প্রশাসন ও শাহমখদুম দরগা ট্রাস্ট সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে। সূত্র জানিয়েছে, কেন্দ্রীয় ঈদগাহে রাজশাহীর রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গ, অন্যান্য বিশিষ্ট ব্যক্তি এবং প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঈদের নামাজ আদায় করবেন।
বৈরি আবহাওয়ার কারণে এখানে নামাজ আদায় সম্ভব না হলে একই সময় হযরত শাহমখদুম (র.) দরগা মসজিদে জামাত অনুষ্ঠিত হবে। রাজশাহীতে একই সময় ঈদের দ্বিতীয় বৃহত্তম জামাত হবে সকাল ৮টায় টিকাপাড়া ঈদগাহ ময়দানে। একই সময়ে আরও একটি বড় জামাত অনুষ্ঠিত হবে নগরীর সাহেববাজার বড় মসজিদ সংলগ্ন রাসত্মায়।
এদিকে রাজশাহী সিটি করপোরেশন, ইসলামিক ফাউন্ডেশন এবং স’ানীয় সূত্রে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, নগরীতে প্রথম দুটি ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল ৭টায়। নগরীর আমচত্বর আহলে হাদীস মাঠ এবং রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত হবে এ দুটি ঈদ জামাত।
এছাড়া সকাল সাড়ে ৭টায় নগরীর উপশহর কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ, বড়বনগ্রাম আল ফারম্নক জামে মসজিদ, শালবাগান গণপূর্ত মাঠ, বিনোদপুর আহলে হাদিস জামে মসজিদ এবং মেহেরচন্ডী নতুনপাড়া ঈদগাহে জামাত অনুষ্ঠিত হবে। নগরীর মেহেরচন্ডী মধ্যপাড়া কেন্দ্রীয় মসজিদে সাড়ে ৭টায় এবং বালিয়াপুকুর জামে মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে সকাল পৌনে ৮টায়।
হড়গ্রাম গোরস’ান সংলগ্ন ঈদগাহ মাঠে সকাল সাড়ে ৭টা এবং ৮টায় দুটি জামাত অনুষ্ঠিত হবে। হড়গ্রাম মুন্সিপাড়া জামে মসজিদেও সকাল ৮টায় এবং ৯টায় দুটি জামাত অনুষ্ঠিত হবে। পবার নওহাটা আকবরি জামে মসজিদ, টিকরীপাড়া ঈদগাহ মাঠ এবং নওহাটা স্কুল মাঠে ঈদের জামাত হবে সকাল ৮টায়।
এছাড়া সকাল ৮টায় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে নগরীর লাল মুহাম্মদ ঈদগাহ, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ঈদগাহ, লোকনাথ স্কুল মাঠ, পাঁচানীমাঠ ঈদগাহ, ডাঁশমারি পূর্বপাড়া ঈদগাহ, ডাঁশমারি বাইতুল মারেফত মাঠ, সাতবাড়িয়া ঈদগাহ, মেহেরচন্ডী ঈদগাহ, মির্জাপুর ঈদগাহ, মির্জাপুর পশ্চিমপাড়া জামে মসজিদ, বুলনপুর ঈদগাহ, মসজিদ-ই-নূর ঈদগাহ, কয়েরদাড়া ঈদগাহ, মদিনাতুল উলুম কামিল মাদ্রাসা মাঠ, ডিঙ্গাডোবা ঈদগাহ মাঠ, কাশিয়াডাঙ্গা সিটি গেইট ঈদগাহ, কাশিয়াডাঙ্গা ঈদগাহ, মির্জাপুর পূর্ব পাড়া ঈদগাহ, ফিরোজাবাদ ঈদগাহ ময়দানে।
সকাল সোয়া ৮টায় রাজশাহী বিভাগীয় স্টেডিয়াম (তেরখাদিয়া) ঈদগাহ, শিরোইল সরকারি হাই স্কুল ঈদগাহ, মালদা কলোনী ঈদগাহ এবং রামচন্দ্রপুর মহলদার পাড়া ঈদগাহে ঈদুল আজহার নামাজ অনুষ্ঠিত হবে।
সকাল সাড়ে ৮টায় রাজশাহী জজ কোর্ট ঈদগাহ ময়দান, লড়্গীপুর ভাটাপাড়া ঈদগাহ, রায়পাড়া বসরী ঈদগাহ, কাঁঠালবাড়ীয়া ঈদগাহ, রায়পাড়া ঈদগাহ, রাজশাহী কোর্ট স্টেশন ঈদগাহ, মোলস্নাপাড়া ঈদগাহ, লক্ষ্মীপুর ভাটাপাড়া ঈদগাহ মাঠ, কোর্ট বুলনপুর ঈদগাহ মাঠ, খোজাপুর গোরস’ান ঈদগাহ মাঠ, জাহাজঘাট মোড় ঈদগাহ মাঠ, খোজাপুর ১ নম্বর ঈদগাহ, শহীদবাগ জামে মসজিদ এবং ধরমপুর মধ্যপাড়া ঈদগাহ মাঠে জামাত অনুষ্ঠিত হবে। এছাড়া উপশহর কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ ঈদগাহ, চৌদ্দপাই মোড় ঈদগাহ, বুধপাড়া ঈদগাহ ময়দান, খাদেমুল ইসলাম স্কুল অ্যান্ড কলেজ এবং তালাইমারী বাজার ঈদগাহ ময়দানে একই সময়ে ঈদের নামাজ অনুষ্ঠিত হবে।
এদিকে, ঈদকে সামনে রেখে রাজশাহী নগরে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস’া গ্রহণ করা হয়েছে। রাজশাহী মহানগর পুলিশের মুখপাত্র গোলাম রম্নহুল কুদ্দাস জানান, ঈদ জামাতকে কেন্দ্র করে রাজশাহীতে নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। ঈদগাহ ময়দানে নিরাপত্তায় পুলিশের টহল টিম কাজ করবে। এছাড়া সাদা পোষাকে গোয়েন্দা নজরদারি থাকবে।
রাজশাহীর শাহ্‌ মখদুম রূপোস ঈদগাহ মাঠে ঈদের প্রধান জামাতের সব ধরনের প্রস’তি নেওয়া হয়েছে। এবার ঈদগাহে টয়লেট ও অজুর ব্যবস’া থাকায় ঈদগাহে নামাজে আসা মুসলিস্নদের ভোগানিত্ম পোহাতে হবে না। ঈদ বর্ষার মধ্যে হওয়ায় বৃষ্টিনিরোধক ত্রিপলও লাগানো হয়েছে শামিয়ানার ওপরে। প্যান্ডেলের খুঁটিগুলোতে কাপড় ও শামিয়ানার সঙ্গে বৈদ্যুতিক পাখা এবং বাতি লাগানোর কাজও প্রায় শেষ।
রাজশাহী জেলার বিভিন্ন উপজেলার ঈদগাহগুলোতেও আগামীকাল সকাল ৮টা থেকে সাড়ে ৮টার মধ্যে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হবে। ঈদের দুই রাকায়াত ওয়াজিব নামাজ আদায় করে ত্যাগের মহিমায় মহান আলস্নাহর সন’ষ্টি কামনায় নিজ নিজ সামর্থ্য অনুযায়ী পশু কোরবানি করবেন ধর্মপ্রাণ মুসলমান।