এফএনএস আর্ন্তজাতিক: মিয়ানমারের পূর্বাঞ্চলীয় একটি গ্রামে ভয়াবহ ভূমিধসে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২২ জনে দাঁড়িয়েছে। এতে নিখোঁজ রয়েছে আরও অনেকে। নিহতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। খবর এএফপি’র।
প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, অতিবৃষ্টির ফলে শুক্রবার মিয়ানমারের মোন রাজ্যে পবর্তের পাদদেশে অবসি’ত থায়ি পেয়ার কোনি গ্রামের ওপর ভয়াবহ পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটে। এতে ওই গ্রামের ১৬টি বাড়ি ও এক মঠ মাটির নিচে চাপা পড়ে। এ ঘটনায় অনুসন্ধান ও উদ্ধার দলের সদস্যরা জীবিতদের খুঁজে বের করতে এবং কাদার মাটির ভিতর থেকে অনেকের লাশ উদ্ধারে রাতভর কাজ করে। দেশটির জর্বরি বিভাগের কর্মীরা শনিবার তাদের অনুসন্ধান অভিযান অব্যাহত রেখেছে।
স’ানীয় প্রশাসক মিয়ো মিন তুন বলেন, এ পর্যন্ত আমরা ২২ জনের লাশ ও আহত ৪৭ জনকে উদ্ধার করেছি। এখনো শতাধিক লোক নিখোঁজ রয়েছে বলে কর্মকর্তারা ধারণা করছেন। ৩২ বছর বয়সী হতাই হতাই উইন এএফপি’কে বলেন, তার দুই মেয়ে এবং অপর পাঁচ আত্মীয়ের এখন পর্যন্ত কোন সন্ধান পাওয়া যায়নি।তিনি কাঁদতে কাঁদতে বলেন, আমি বিকট শব্দে পাহাড় ধসের শব্দ শুনি এবং মাটির নিচে আমার বাড়িটি চাপা পড়ার দৃশ্য দেখতে পাই।