চাঁপাইনবাবগঞ্জ ব্যুরো: ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে ব্যস্ততা বেড়ে গেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জের কামারশালাগুলোতে। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চলছে তপ্ত লোহাকে পিটিয়ে দা, ছুরি, বটি তৈরির কাজ।
জেলা শহরের কয়েকটি কামারশালা ঘুরে দেখা যায় এ চিত্র। শহরের প্রাণ কেন্দ্র অক্ট্রয়মোড় এলাকার একটি কামার শালায় কথা হয়, মালিক মতিলাল কর্মকারের সাথে। তিনি জানালেন, ঈদ আসলেই তাদের কাজের চাপ কয়েকগুণ বেড়ে যায়, গত বছর বস্তা প্রতি যে কয়লা সাড়ে ৬ শ টাকা ছিল, তা এবছর বেড়ে হয়েছে ১ হাজার ২ শ টাকা। ফলে স্বাভাবিকভাবে বেড়েছে মজুরি। তারপরও বাড়তি কাজে তার আয় ভালই হচ্ছে । আর এই বাড়তি চাপ সামাল দিতে অতিরিক্ত ৩ জন শ্রমিক নিয়োগ করেছেন যারা ছুরি দা ধারালো করে তোলার কাজ করছেন। তিনি আরো বলেন, পুরনো দা, ছুরি, বটি শান দেয়ার মজুরি প্রকার ভেদে ৫০, ৮০ ও ১২০ টাকা নেয়া হচ্ছে। গত বছর লোহার দাম ছিল কেজিতে ৪ শ টাকা। এবার বেড়ে হয়েছে ৫ শ টাকা। ফলে পারিশ্রমিকের ওপর বেশ প্রভাব পড়েছে।
কামারশালায় কথা হয় আনারুল ও শফিকুলের সাথে, পছন্দমত ও মানসম্মত ছুরি কিংবা দা যায়ই হোকনা কেন, কোরবানি ঈদের সময় কামারশালায় আসতে হয়। দাম কিছুটা বাড়তি থাকলেও তৈরি পাওয়া গেলেও মানের বিচারে নিজের পছন্দমত ও ওজনের তৈরি করে নেয়া ভাল।
এছাড়াও শহরের বেশ কিছু স’ানে তৈরিকৃত ছুরি, দা, বটি বিক্রি করছেন ব্যবসায়ীরা। অনেকেই এসব অস’ায়ী দোকানে ভিড় করছেন। দরদাম করে কিনে নিচ্ছেন।