নন্দীগ্রাম (বগুড়া) প্রতিনিধি: নন্দীগ্রামে ইউএনও’র হস্তৰেপে বাল্যবিয়ে থেকে রৰা পেল দশম শ্রেণির ছাত্রী আমিনা খাতুন।
সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পবিার দিবাগত রাতে নন্দীগ্রাম পৌরসভার বেলঘড়িয়া গ্রামের আমিনুল ইসলামের মেয়ে আমিনা খাতুনের সাথে একই গ্রামের সাইফুল ইসলাম পেন্সিলের ছেলে সাকিব হোসেনের বিয়ের আয়োজন চলছিল। এ খবর পেয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আখতার বিয়ে বাড়িতে গিয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধ করে দেয়। এ সময় ১৮ বছরের আগে মেয়েকে বিয়ে দিবে না বলে মুচলেকা প্রদান করেন মেয়ের পরিবার। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী অফিসার শারমিন আখতার জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে বিয়ে বাড়িতে গিয়ে বাল্যবিয়ে বন্ধ করে দেয়া হয়।