স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীতে সিটি পশুর হাট থেকে ফেরার পথে গরম্ন ব্যবসায়ী বাব-চাচাকে বেঁধে রেখে ছেলেকে হত্যা করে আড়াই লাখ টাকা ছিনিয়ে নিয়ে গেছে দুর্বৃত্তরা। কাটাখালি থানার কুখ-ি এলাকা থেকে পুলিশ লাশটি উদ্ধার করেছে। গত বুধবার দিবাগত রাতে এ ঘটনা ঘটে। নিহত গরম্ন ব্যবসায়ী জরিপ আলী মৃধা (৩৬)। তার বাবার নাম আলাল মৃধা ও চাচার নাম মোশারফ হোসেন মৃধা। তারা নাটোর জেলার সিংড়া মহিষমারী গ্রামের বাসিন্দা। লাশটি ময়না তদনত্ম শেষে পরিবারের কাছে হসত্মানত্মর করা হয়েছে। এছাড়াও এ ব্যাপারে থানায় মামলা হয়েছে।
কাটাখালি থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জিলস্নুর রহমান বলেন, নিহত জরিপ মৃধা, তার বাবা আলাল মৃধা ও চাচা মোশারফ হোসেন মৃধা গরম্ন ব্যবসায়ী। বুধবার তারা রাজশাহীর সিটি হাটে গরম্ন কিনতে আসেন। এরপর গরম্ন দামে না পোসালে সন্ধ্যার পর তারা বাড়ি ফেরার উদ্দেশ্যে আমচত্বরে যান। সেখানে গাড়ি না পেয়ে নওদাপাড়া বাসস্ট্যা-ে যান। সেখানে একটি খালি ট্রাক তাদেরকে সিংড়া পৌছে দেয়ার কথা বলে ট্রাকের কেবিনে বসানো হয়।
এরপর খড়খড়ি গিয়ে ট্রাক চালক আরও তিনজনকে ট্রাকে তোলেন। ট্রাকে উঠে চলনত্ম অবস’ায় তারা তাদেরকে মারপিট শুরম্ন করলে জরিপ আলী মৃধার সঙ্গে তাদের হাতাহাতি শুরম্ন হয়। এ সময় দুর্বৃত্তরা জরিপ আলী মৃধার মাথায় হাতুড়ি দিয়ে আঘাত করলে তিনি জ্ঞান হারান। এরপর তার বাবা ও চাচাকে হাত বেঁধে তাদের কাছে থাকা আড়াই লাখ টাকা ছিনিয়ে নেয়। এরপর ট্রাকটি বেশকিছুড়্গণ এদিক-সেদিক ঘোরাঘুরি করে রাত ১১টার দিকে কুখ-ি এলাকায় গিয়ে তাদের রাসত্মার ওপরে ফেলে দিয়ে পালিয়ে যায়। পরে টহল পুলিশ তাদের উদ্ধার করে রামেক হাসপাতালের জরম্নরি বিভাগে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক জরিপ আলী মৃধাকে মৃত ঘোষণা করেন।
ওসি আরও বলেন, এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে এবং ময়না তদনত্ম শেষে লাশটি পরিবারের কাছে হসত্মানত্মর করা হয়েছে। এছাড়াও তিনি বলেন, আমরা ট্রাকটি আটক করতে বিভিন্ন থানাকে ঘটনাটি অবহিত করেছি। তবে গতকাল রাত ৯টায় শেষ খবর পাওয়া পর্যনত্ম তাদের সন্ধ্যান করতে পারেনি পুলিশ।