এফএনএস: আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে কোরবানির পশুর চামড়ার দাম নির্ধারণ করেছে সরকার। এবার ঢাকায় প্রতি বর্গফুট লবণযুক্ত গরম্নর চামড়ার দাম ৪৫ থেকে ৫০ টাকা এবং ঢাকার বাইরে হবে ৩৫ থেকে ৪০ টাকা। গতবছরও একই দামই পশুর চামড়া কেনা হয়। সরকার ও ট্যানারি মালিকসহ সংশিস্নষ্টদের সঙ্গে গতকাল মঙ্গলবার বৈঠকের পর বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।
বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে পশুর চামড়ার দাম নির্ধারণ সংক্রানত্ম ওই বৈঠকে চামড়া খাতের শিল্পের উদ্যোক্তা, ব্যবসায়ী, রপ্তানিকারক ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতিনিধিরা উপসি’ত ছিলেন। বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেন, আমাদের বাজার দিন দিন ছোট হয়ে যাচ্ছে। আনত্মর্জাতিক বাজারে চাহিদাও কমে গেছে। কিন’ চামড়াজাত পণ্যের দাম বেড়েছে। কোরবানির চামড়া বেচার টাকা কেউ পকেটে করে নিয়ে যায় না। এটা বিভিন্ন মসজিদ-মাদ্রাসায় দেওয়া হয়। আমরা চাইছি চামড়ার দাম বাড়ুক।
তবে আমাদের মান বাড়াতে হবে। তাই সব কিছু বিবেচনায় গতবারের দামই নির্ধারণ করা হয়েছে। তিনি জানান, এবার প্রতি বর্গফুট গরম্নর চামড়া ঢাকায় ৪৫ থেকে ৫০ টাকা এবং ঢাকার বাইরে ৩৫ থেকে ৪০ টাকায় কেনা হয়। এ ছাড়া সারাদেশে খাসির চামড়া প্রতি বর্গফুট ১৮ থেকে ২০ টাকা এবং বকরির চামড়া ১৩ থেকে ১৫ টাকায় সংগ্রহ করতে বলা হয়েছে ব্যবসায়ীদের। ২০১৮ সালেও একই দামে চামড়া কেনা হয়।
উলেস্নখ্য, ঢাকায় ২০১৪ সালে ৭৫ থেকে ৮০ টাকা, ২০১৫ সালে ৫০ টাকা, ২০১৬ সালে ৫০ থেকে ৫৫ টাকা, ২০১৭ সালে ৫০ থেকে ৫৫ টাকা এবং ২০১৮ সালে ৪৫ থেকে ৫০ টাকায় প্রতি বর্গফুট পশুর চামড়া কেনা হয়। বৈঠক বাণিজ্যসচিব মো. মফিজুল ইসলাম, অতিরিক্ত সচিব তপন কানিত্ম ঘোষ, বাংলাদেশ ট্যানার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিটিএ), হাইড অ্যান্ড স্কিন মার্চেন্ট অ্যাসোসিয়েশন (বিএইচএসএমএ) ও ফিনিশড লেদার, লেদারগুডস অ্যান্ড ফুটওয়্যার এক্সপোর্টার অ্যাসোসিয়েশনের (বিএফএলএলএফইএ) নেতা ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা উপসি’ত ছিলেন।