চাঁপাইনবাবগঞ্জ ব্যুরো: ধানের দাম না পাওয়ার পরও চাঁপাইনবাবগঞ্জে রোপা-আমনের আবাদ নিয়ে ব্যস্ত কৃষকরা। তবে কৃষি বিভাগ বলছে, বৃষ্টিপাত দেরিতে হলেও সময় থাকা এবং কৃষকরা সেপ্টেম্বরের মধ্যভাগ পর্যন্ত আমনের আবাদ করতে পারবে। ইতোমধ্যে ৬০ ভাগ জমিতে আমন ধান রোপনের কাজ শেষ করেছে কৃষকরা। তবে কৃষি বিভাগ আমনের ভাল ফলনের আশা করছে।
সংশিৱষ্ট সূত্রে জানা গেছে, জেলার ৫টি উপজেলায় চলতি মৌসুমে ৫১ হাজার ২ শ ৬১ হেক্টর জমিতে আমন ধান আবাদের লৰ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এরই মধ্যে ৩৩ হাজার ৮ শ ১০ হেক্টর জমিতে আমন চাষাবাদ হয়েছে। সেপ্টেম্বর মাসের মধ্যভাগ পর্যন্ত আমন আবাদ করতে পারবে কৃষকরা। চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলায় ৮ হাজার ৭ শ ৫০ হেক্টরের বিপরীতে ৪ হাজার ১ শ হেক্টর, নাচোলে ২২ হাজার ৫ শ ৭৮ হেক্টরের বিপরীতে ১৭ হাজার ৫ শ হেক্টর, গোমস্তাপুরে ১৪ হাজার ৮ শ ৪৩ হেক্টরের বিপরীতে ১১ হাজার ২ শ ৫০ হেক্টর, ভোলাহাটে ৪ হাজার ৩ শ ৪০ হেক্টরের বিপরীতে ৪ হাজার ৩ শ ৪০ হেক্টর, শিবগঞ্জে ৭ শ ৫০ হেক্টরের বিপরীতে ৩ শ ৭০ হেক্টর জমিতে আবাদ হয়েছে।
কৃষি সমপ্রসারণ অধিদপ্তর চাঁপাইনবাবগঞ্জের উপ-পরিচালক মঞ্জুরুল হুদা জানান, এ বছর রোপা আমন মৌসুমের শুরুতে বৃষ্টিপাত না হলেও পরবর্তীতে পর্যাপ্ত বৃষ্টি হওয়ায় কৃষকরা আবাদ করছেন। তিনি আরো জানান, সে্‌প্েটম্বর মাসের মধ্যভাগ পর্যন্ত চাষাবাদ চলবে। গত বছর এ সময় ২ শ ৫০ মি.মি বৃষ্টিপাত হয়েছিল। কিন্তু চলতি মৌসুমে এ পর্যন্ত ৩ শ ৫৫ মি.মি. বৃষ্টিপাত হয়েছে। তবে বৃষ্টি দেরিতে হলেও ভাল ফলনের আশা করছেন।