এফএনএস: রাজধানীর নবাবপুর এলাকায় মোবাইল চুরির অভিযোগে রজব নামে এক যুবককে হত্যা মামলায় তিন আসামিকে মৃত্যুদ- দিয়েছেন আদালত। এ ঘটনায় আরও সাতজন আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদ- দেওয়া হয়। গতকাল বৃহস্পতিবার দ্র্বত বিচার ট্রাইব্যুনাল-৪ এর বিচারক আবদুর রহমান সরদার রায় ঘোষণা করেন।
মৃত্যুদ- পাওয়া আসামিরা হলো, রহিম ওরফে আরিফ, জিকু ও আবু বক্কর সিদ্দিক। তাদের তিনজনই পলাতক। যাবজ্জীবন কারাদ-প্রাপ্ত আসামিরা হলো, মন্টি, মিলন, আকাশ ওরফে রাসেল, ফরহাদ হোসেন, সজিব আহমেদ খান, শহীন চাঁন খাদেম ও মোহাম্মদ আলী হাওলাদার বাবু। মোহাম্মদ আলী হাওলাদার বাবু ছাড়া সবাই পলাতক।
যাবজ্জীবন পাওয়া আসামিদের প্রত্যেকের ২০ হাজার টাকা অর্থদ- অনাদায়ে আরও এক বছরের কারাদ-ের আদেশ দেন আদালত। মামলার অভিযোগে বলা হয়, ২০১১ সালের ২৪ জুলাই রাতে বাদী তার ভাবির মাধ্যমে জানতে পারেন কে বা কারা তার ছোট ভাই রজবকে (ভিকটিম) ছুরিঘাত করে হত্যা করে।
খবর পেয়ে বাদী ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গিয়ে তার ভাইয়ের রক্তাক্ত লাশ দেখতে পান। সেখানে লোকজনের কাছে জানতে পারেন র্ববেল এবং বাদীর ভাই রজব মোবাইলে ফেক্সিলোড করার জন্য নবাবপুর রোডে যাওয়া মাত্র আসামিরা বাদীর ভাইকে ১৬/এ কোর্ট হাউস স্ট্রিটের কাছে নিয়ে গিয়ে বুকে ও পেটে তিনটি ছুরিলভঘাত করে। পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় আসামিদের বির্বদ্ধে বাদীর ভাই কোতোয়ালি থানায় হত্যা মামলা করেন। ২০১২ সালের ৫ ডিসেম্বর মামলাটির তদন্ত কর্মকর্তা (উপপরিদর্শক) বি এম নাজমুল হুদা আসামিদের বির্বদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।