স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীতে গত জুলাই মাসে ২৮ নারী ও শিশু নির্যাতনের শিকার হয়েছে বলে বেসরকারী বিভিন্ন উন্নয়ন ও মানবাধিকার সংস’ার এক পরিসংখ্যানে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।
রাজশাহী এ্যাসোসিয়েশন ফর কম্যুনিটি ডেভেলপমেন্ট (এসিডি) জানায়, গত এক মাসে ১৯ জন নারী ও শিশু নির্যাতনের শিকার হয়েছে। এরমধ্যে ১৩ নারী ও ৬ জন রয়েছে।
জুলাই মাসে নারী ও শিশু নির্যাতনের আলোচিত ঘটনাগুলোর মধ্যে ছিল, গত ২ জুলাই পুঠিয়ায় গভীর রাতে নারীকে কুপিয়ে হত্যা, ৭ জুলাই গোদাগাড়ীতে গৃহবধূর রহস্যজনক মৃত্যু, ৯ জুলাই গোদাগাড়ীতে মাকে হত্যা মাদকাসক্ত ছেলে আটক, ১৭ জুলাই দুর্গাপুরে অন্তঃসত্ত্বা নারীকে নির্যাতন করে গর্ভপাত, ২১ জুলাই দুর্গাপুরে তিন বছরের শিশুকে ধর্ষণের চেষ্টা, ২৭ জুলাই নগরীতে নার্সিং কলেজের মেসে ছাত্রীর ঝুলন্ত লাশ এবং ৩০ জুলাই রাজশাহীতে যৌতুকের দাবিতে গৃহবধূকে নির্যাতন।
জেলায় ১৩টি নারী নির্যাতনের মধ্যে মহানগরীতে ৬ টি এবং বাইরের থানাসমূহে ৭টি নির্যাতনের ঘটনা সংঘটিত হয়েছে। এরমধ্যে বাগমারায় ১টি, পুঠিয়ায় ২টি, গোদাগাড়ীতে ২টি, পবায় ১টি এবং দুর্গাপুরে ১টি নারী নির্যাতনের ঘটনা ঘটে। এসব ঘটনার মধ্যে হত্যা ২টি, হত্যার চেষ্টা ৩ টি, রহস্যজনক মৃত্যু ৩টি, আত্মহত্যা ২টি, আত্মহত্যার চেষ্টার ঘটনা ঘটে ১টি, নিঁখোজ ১টি এবং ১টি যৌন হয়রানির ঘটনা ঘটে।
জেলায় গত মাসে শিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটে ৬ টি। সবগুলো ঘটনায় মহানগরীর বাইরের থানাগুলোতে সংঘটিত হয়েছে। এর মধ্যে বাগমারায় ০২টি, মোহনপুরে ১টি, দুর্গাপুরে ১টি এবং পুঠিয়ায় ২ টি শিশু নির্যাতনের খবর পাওয়া গেছে। এসব ঘটনার মধ্যে ধর্ষণের চেষ্টা ১ টি, অপহরণ ২ টি, আত্মহত্যার চেষ্টা ১টি, নিঁখোজ ১টি এবং অন্যান্য ঘটনা ঘটে ১ টি।
অপরদিকে, উন্নয়ন সংস’া লেডিস অর্গানাইজেশন ফর সোসাল ওয়েলফেয়ার (লফস) জানায়, জুলাই মাসে রাজশাহীতে নারী ও শিশু নির্যাতন পরিসি’তি, হত্যা ও হত্যার চেষ্টা ৫, আত্মহত্যা ৫, ধর্ষণ-যৌন নির্যাতন ও নির্যাতন ১৫, নিখোঁজ ও অপহরণ ৩ জন নারী ও শিশু। লফস মনে করে এ অঞ্চলে নারী ও শিশু নির্যাতন পরিসি’তি বিভিন্ন মাত্রায় অবনতি ঘটছে। জুলাই মাসে উল্লেখযোগ্য কিছূ ঘটনার মধ্যে হচ্ছে,
নগরীর শাহমখদুম থানার খিরশিংটিকর এলাকায় গৃহবধূ শিখাকে (২২) স্বামী কর্তৃক নির্যাতন, পুঠিয়া শিলমাড়িয়া ইউনিয়নের লেপপাড়া গ্রামের কারিনা বেগম (৪২) নামে এক নারীকে দুর্বৃত্ত কর্তৃক কুপিয়ে হত্যা, গোদাগাড়ীর গোলাই দেওপাড়া ইউনিয়নে সীমা খাতুন (২২) এর গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা, বাগমারার ঝিকরা ইউনিয়নের মধ্যঝিনা গ্রামের পুকুর লীজ নেওয়াকে কেন্দ্র কের প্রতিপৰের নির্যাতনে রিমা খাতুন (২৫) আহত, গোদাগাড়ী উপজেলার আরিজপুর মহল্লায় নেশার টাকা না পেয়ে মা সেলিনা বেগম (৫০) কে হাতুড়ি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা, পুঠিয়ার বানেশ্বর ইউনিয়নের পশ্চিম পাড়া গ্রামের চাঁদনী বেগম (২০) নামের তালাকপ্রাপ্তা এক নারীর গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা, দুর্গাপুরে জয়নগর ইউপির হাটকান পাড়ার বাজুখলসী গ্রামের পারিবারিক কলহের জের ধরে গৃহবধূর র্বনা বেগম (২৫) এর আত্মহত্যা, দূর্গাপুরের মহিপাড়া গ্রামের অন্ত:সত্বা নারীকে নির্যাতন ও নবজাতককে হত্যার অভিযোগ, পবা উপজেলার দামকুড়া ইউনিয়নের কলার টিকর এলাকায় বাবলি বেগম (২৮) নামের গৃহবধূকে পায়ের রগ ও গলা কেটে হত্যা। রাজশাহীতে নারী-শিশু নির্যাতনসহ সার্বিক ঘটনাগুলোর সুষ্ঠ তদন্ত ও দায়ীদের দিষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়েছেন সংস’াটি।