বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক : পরীড়্গা শেষ হওয়ার প্রায় ৮ মাস পরেও ফল প্রকাশিত না হওয়ার প্রতিবাদে ক্লাস বর্জন করে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছেন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষার্থীরা। গতকাল বুধবার সকাল ১০টায় তারা বিভাগের অফিসের সামনে অবস্থান করেন। পরে বিকেল ৩টার দিকে বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক আব্দুলস্নাহ আল মামুন ২৪ ঘন্টার মধ্যে ফল প্রকাশের অগ্রগতি সম্পর্কে জানানোর আশ্বাস দিলে তারা এদিনের কর্মসূচি স্থগিত করেন।
এর আগে বিভাগের সভাপতিসহ শিড়্গকরা কয়েকবার আন্দোলনকারীদের সঙ্গে কথা বললেও তাদের সুস্পষ্ট কোনো আশ্বাস না থাকায় শিড়্গার্থীরা এতে কর্ণপাত করেননি। তারা বিভাগের সভাপতি এবং বিভাগের কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়ে ‘সান্ধ্যকোর্সে এক মাসে আমাদের কয় মাসে? রেজাল্ট চাই রেজাল্ট চাই’ ইত্যাদি সেস্নাগান দিতে থাকেন। অবস্থান কর্মসূচিতে বিভাগের তৃতীয়, চতুর্থ ও মাস্টার্সের শিড়্গার্থীরা অংশ নেন পরে তাদের সাথে সংহতি জানান প্রথম ও দ্বিতীয় বর্ষের শিড়্গার্থীরা।
বেলা ১১টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান সহকারী প্রক্টরদের সঙ্গে নিয়ে শিড়্গার্থীদের সাথে কথা বলেন। এরপর ব্যবসায় অনুষদের ডিন অধ্যাপক হুমায়ন কবীরও শিড়্গার্থীদের নানা আশ্বাস দেন কিন্তু শিড়্গার্থীরা তাদের কর্মসূচি থেকে সরে আসেননি। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বিভাগে জরম্নরি একাডেমিক সভা করেন শিড়্গকরা। প্রায় দুই ঘন্টা একাডেমিক সভা শেষে শিড়্গকরা দুুপুর দেড়টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী মো. জাকারিয়ার সাথে এ বিষয়ে মিটিং করেন।
বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক আব্দুলস্নাহ আল মামুন বলেন, আগামীকাল (আজ বৃহস্পতিবার) বিকেল ৪টা পর্যনত্ম সময় নেওয়া হয়েছে। যেসব কোর্সের শিড়্গকরা খাতা দেখেননি কিংবা তারা এখনও শিড়্গার্থীদের নম্বরপত্র জমা দেননি তাদেরকে বৃহস্পতিবার বিকেলের জমা দিতে বলা হয়েছে। আমরা দ্রম্নত ফল প্রকাশ করতে পারব বলে আশাবাদী।
বিভাগ সূত্রে জানা যায়, গত বছরের ১৩ নভেম্বর বিভাগের প্রথম বর্ষের (বর্তমান দ্বিতীয়) লিখিত পরীড়্গা শুরম্ন হয়ে শেষ হয় ১০ ডিসেম্বর। ১১ নভেম্বর থেকে ৯ ডিসেম্বর পর্যনত্ম চলে দ্বিতীয় বর্ষের (বর্তমানে তৃতীয়) লিখিত পরীড়্গা। ৮ নভেম্বর শুরম্ন হয়ে ১৭ ডিসেম্বর শেষ হয় তৃতীয় বর্ষের এবং ১৪ নভেম্বর শুরম্ন হয়ে চলতি বছরের ২৪ জানুয়ারি শেষ হয় চতুর্থ বর্ষের (বর্তমান মাস্টার্স) লিখিত পরীড়্গা। ১৭ জুলাই প্রথম বর্ষের (বর্তমান দ্বিতীয় বর্ষ) ফল প্রকাশ করা হলেও এখনও অন্যান্য বর্ষের ফল প্রকাশিত হয়নি। বিশ্ববিদ্যালয় অধ্যাদেশ-১৯৭৩ এ ৬০ দিনের মধ্যে বিভাগগুলোর ফল প্রকাশের নির্দেশনা রয়েছে।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক শিড়্গার্থী বলেন, ‘বিভাগের সভাপতির আশ্বাসে আমরা আজকের মতো অবস্থান কর্মসূচি স্থগিত করেছি তবে আমাদের ক্লাস বর্জন অব্যাহত থাকবে। তিনি ২৪ ঘন্টার সময় নিয়েছেন। সময়ের মধ্যে ফল প্রকাশ না করলে আমরা ফের অবস্থান কর্মসূচি শুরম্ন করব।’