বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক: রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের (রাবি) ভর্তি ফি-এর বিষয়ে সম্প্রতি কিছু সংবাদপত্র, অনলাইন নিউজ পোর্টাল ও সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশিত বিভিন্ন তথ্যের বিষয়ে কর্তৃপড়্গের দৃষ্টি আকৃষ্ট হয়েছে। এর প্রেড়্গিতে কর্তৃপড়্গ ভর্তি ফিস ও অন্যান্য বিষয়ে তাদের আনুষ্ঠানিক বক্তব্য জানিয়েছেন। গতকাল সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের জনসংযোগ দফতরের প্রশাসক অধ্যাপক প্রভাষ কুমার কর্মকার স্বাড়্গরিত সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।
বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে ২০১৯-২০২০ শিড়্গাবর্ষে ভর্তির আবেদনের ড়্গেত্রে পূর্ববর্তী শিড়্গাবর্ষের ৫টি ইউনিট পুনর্বিন্যাস করে ৩টি (এ, বি, সি) ইউনিট করা হয়েছে। এ ইউনিটে কলা, চারম্নকলা, সামাজিক বিজ্ঞান, আইন অনুষদ এর ২৭টি বিভাগসহ শিড়্গা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট অনত্মর্ভুক্ত আছে। বি ইউনিটে বিজনেস স্টাডিজ অনুষদ এর ৬টি বিভাগ ও আইবিএ অনত্মর্ভুক্ত আছে।
সি ইউনিটে বিজ্ঞান, জীব ও ভূ-বিজ্ঞান, কৃষি ও প্রকৌশল অনুষদভুক্ত ২৫টি বিভাগ আছে। প্রতিটি ইউনিটের প্রাথমিক আবেদন ফি ৫৫ টাকা ও চূড়ানত্ম আবেদন ফি ১৯৮০ টাকা। এ (মানবিক) ইউনিটের পরীড়্গার্থীরা তাদের যোগ্যতা এবং পছন্দক্রম অনুসারে সংশিস্নষ্ট ইউনিট এ এর বিভাগসহ বি ইউনিটের নির্ধারিত বিভাগের নির্দিষ্ট সংখ্যক আসনে ভর্তির সুযোগ পাবে।
একই সাথে সি ইউনিটের ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা, মনোবিজ্ঞান, চিকিৎসা মনোবিজ্ঞান এবং শারীরিক শিড়্গা ও ক্রীড়া বিজ্ঞান বিভাগের নির্দিষ্ট সংখ্যক আসনে ভর্তির সুযোগ পাবে। বি (বাণিজ্য) ইউনিটের পরীড়্গার্থীরা তাদের যোগ্যতা এবং পছন্দক্রম অনুসারে সংশিস্নষ্ট ইউনিট বি এর বিভাগসহ এ ইউনিটের নির্ধারিত বিভাগের নির্দিষ্ট সংখ্যক আসনে ভর্তির সুযোগ পাবে।
একই সাথে সি ইউনিটের ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা, মনোবিজ্ঞান, চিকিৎসা মনোবিজ্ঞান এবং শারীরিক শিড়্গা ও ক্রীড়া বিজ্ঞান বিভাগের নির্দিষ্ট সংখ্যক আসনে ভর্তির সুযোগ পাবে। সি (বিজ্ঞান) ইউনিটের পরীড়্গাথীরা তাদের যোগ্যতা এবং পছন্দক্রম অনুসারে সংশিস্নষ্ট ইউনিট সি এর বিভাগসহ এ ও বি ইউনিটের নির্ধারিত বিভাগের নির্দিষ্ট সংখ্যক আসনে ভর্তির সুযোগ পাবে।
বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, চলতি বছর ভর্তি পদ্ধতি সহজিকরণের মাধ্যমে শিড়্গার্থীদের ভোগানিত্ম হ্রাস ও আর্থিক সাশ্রয়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এছাড়া এবার মেধাযাচাইয়ের ড়্গেত্রে ৬০ নম্বরের এমসিকিউ ও ৪০ নম্বরের সংড়্গিপ্ত প্রশ্নে পরীড়্গা নেয়া হবে। পরীড়্গার সময় যথাক্রমে ৫০ মিনিট ও ৪০ মিনিট নির্ধারিত হয়েছে।