স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী-২ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা বলেছেন, একাত্তরের মহান মুক্তিযুদ্ধ করেছি। তাই মুক্তিযোদ্ধাদের দুঃখ-কষ্ট বুঝি। এ জন্য মুক্তিযোদ্ধাদের পাশে থেকেছি। আগামীতেও সব সময় মুক্তিযোদ্ধাদের কল্যাণে কাজ করে যাব। আজীবন মুক্তিযোদ্ধাদের পাশে থাকবো।
গতকাল সোমবার বিকালে রাজশাহী মহানগরীর প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধা মাইনুল ইসলাম, সাইদুর রহমান, আবদুর রহমান, আবুল হোসেন কাহাবুল, শহীদুলস্নাহসহ প্রয়াত অন্যান্য মুক্তিযোদ্ধাদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় আয়োজিত এক দোয়া মাহফিল ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাদশা এ কথা বলেন।
রাজশাহী পশ্চিমাঞ্চল মুক্তিযোদ্ধা সমবায় সমিতি লিমিটেড নগরীর উপকণ্ঠ কাশিয়াডাঙ্গায় তাদের নিজস্ব কার্যালয়ে এর আয়োজন করে। ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, সংসদ সদস্য হিসেবে বিগত দুই মেয়াদে মুক্তিযোদ্ধাদের কল্যাণে কাজ করেছি। এ শহরের মুক্তিযোদ্ধাদের সব সমস্যার সমাধান করা হবে চলতি মেয়াদে।
বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির এই সাধারণ সম্পাদক বলেন, মুক্তিযোদ্ধারা জাতির শ্রেষ্ঠ সনত্মান। অসাম্প্রদায়িক এক স্বাধীন দেশ গড়তে তারা অস্ত্র হাতে নিয়ে জীবন বাজি রেখে যুদ্ধ করেছেন। কিন্তু এখনও পরাজিত শক্তি তাদের বিভ্রানত্ম করার চেষ্টা করছে। এ ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে।
তিনি বলেন, রাজশাহীর অনেক মুক্তিযোদ্ধাই আমাদের ছেড়ে চলে গেছেন। যারা বেঁচে আছেন তারাও জীবনের শেষভাগে এসে পৌঁছেছেন। তাদের যথাযথ সম্মান এবং মর্যাদা আমাদের দিতে হবে। রাজশাহীর মুক্তিযোদ্ধাদের নিয়ে একটি স্মরণিকা বের করা হবে। সেখানে প্রয়াত এবং জীবিত- সকল মুক্তিযোদ্ধার ছবি এবং তথ্য থাকবে। রাজশাহীর মানুষ তাদের শ্রদ্ধাভরে স্মরণ করবে।
আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন সাবেক প্রতিমন্ত্রী জিনাতুন নেসা তালুকদার। সভাপতিত্ব করেন পশ্চিমাঞ্চল মুক্তিযোদ্ধা সমবায় সমিতির সভাপতি আবদুল আজীজ। অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন- সাধারণ সম্পাদক শাহজাহান আলী, নগর মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক কমান্ডার ডা. আবদুল মান্নান, মুক্তিযোদ্ধা এমদাদুল হক বাবু, আবদুস সামাদ প্রমুখ। শহীদ পরিবারের সনত্মান গোলাম মোর্শেদ সভা পরিচালনা করেন। আলোচনা শেষে প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধাদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া করা হয়।