স্টাফ রিপোর্টার: চলতি বর্ষাকালেও রাজশাহীতে অসহনীয় পর্যায়ে পৌঁছেছে বিদ্যুতের বিভ্রাট। তাই নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুতের দাবিতে গতকাল শনিবার রাজশাহীতে নর্দান পাওয়ার সাপস্নাই কোম্পানি লিমিটেড (নেসকো) রাজশাহীর ব্যবস্থাপনা পরিচালক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেছে সামাজিক সংগঠন রাজশাহী রড়্গা সংগ্রাম পরিষদ-এর নেতৃবৃন্দ।
এ সময় সংগ্রাম পরিষদের নেতারা বলেন, বিদ্যুৎ বিভ্রাট কোনোভাবেই কাটছে না। কিন্তু মাস শেষে আসছে ভৌতিক বিল। দ্রম্নত সময়ের মধ্যে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত এবং ভৌতিক বিলের মাধ্যমে মানুষের পকেট কাটা বন্ধ করতে হবে। এ জন্য এক মাস সময় বেধে দিয়ে তারা বলেন, আগামী ৩০ দিনের মধ্যে রাজশাহীতে স্বাভাবিক বিদ্যুৎ সরবরাহে ব্যর্থ হলে বিদ্যুৎ বিল প্রদান বন্ধ করে দেওয়া হবে।
স্মারকলিপিতে বলা হয়, রাজশাহীতে নেসকো প্রতিষ্ঠা হওয়ার পরে সকল সত্মরের মানুষকে নিয়ে মতবিনিময়ের মাধ্যমে বিভিন্ন অভিযোগ শুনে আশ্বসত্ম করা হয়েছিলো নগরবাসী সঠিকভাবে নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সেবা পাবেন। তবে অত্যনত্ম দুঃখের বিষয় শুরম্ন থেকেই বিদ্যুৎ সরবরাহে নেসকো ব্যর্থ হয়েছে। বিগত সময়ে বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড থাকাকালীন নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ পেয়েছেন নগরবাসী। অথচ এখন দিনে রাতে সমান তালে চলছে বিদ্যুতের লুকোচুরি। এতে মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। একদিকে বিদ্যুতের লোডশেডিং অন্যদিকে মাস শেষে ভৌতিক বিলের কারণে এখন নাভিশ্বাস উঠেছে গ্রাহকদের। কারো কারো বিল চার থেকে পাঁচ গুন পর্যনত্ম বৃদ্ধি করা হয়েছে। অভিযোগ রয়েছে, মিটার রিডিং না করেই আয় বৃদ্ধি দেখাতে ঘরে বসে যা ইচ্ছে বিল করে অর্থ আদায় করছে নেসকো।
স্মারকলিপিতে উলেস্নখ করা হয়, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশে প্রচুর বিদ্যুৎ উৎপাদন করছেন। সেই তুলানায় রাজশাহীতেও চাহিদামতো বিদ্যুৎ সরবরাহ আছে। তবে নেসকো কর্মকর্তাদের চরম উদাসিনতায় রাজশাহীবাসী বিদ্যুৎ সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন। অভিযোগ করলে সমাধান না দিয়ে চরম খারাপ আচরণ করা হয় গ্রাহকদের সঙ্গে। সামান্য খারাপ আবহাওয়া ও বৃষ্টি পড়লে বিদ্যুৎ বন্ধ হয়ে যায়। অব্যাহত লোডশেডিংয়ের কারণে নগরবাসী চরম দুর্ভোগে পোহাচ্ছে। শিড়্গার্থীদের লেখাপড়া ড়্গতিগ্রসত্ম হচ্ছে। সরকারি-বেসরকারি অফিস-আদালতসহ সকল প্রতিষ্ঠানের কাজে সমস্যা হচ্ছে। এ অঞ্চলে ভারী বড় কলকারখানা নেই। অধিকাংশ মানুষ শিড়্গা প্রতিষ্ঠানের উপর নির্ভর করেই জীবিকা নির্বাহ করে। ঘনঘন লোডশেডিংয়ের কারণে সকল ব্যবসা বাণিজ্যে মারাত্মকভাবে আর্থিক ড়্গতি সাধিত হচ্ছে। লোডশেডিংয়ের পাশাপাশি ভৌতিক বিলসহ সুড়্গ কারচুপির মাধ্যমে গত জুন মাসে শুরম্ন হয়েছে বাড়তি বিলের নতুন সমস্যা।
স্মারকলিপি প্রদানকালে রাজশাহী রড়্গা সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি মো. লিয়াকত আলী, সাধারণ সম্পাদক জামাত খান, সহ-সভাপতি হারম্ননার রশিদ, সাংগঠনিক সম্পাদক দেবাশিষ প্রামাণিক দেবু, মঞ্জুর হাসান মিঠু, মুক্তিযোদ্ধা বজলুর রহমান, প্রকৌশলী খাজা তারেক, নারী উন্নয়ন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান সেলিনা বেগম, ওয়েব রাজশাহীর সভাপতি আঞ্জুমান আরা লিপি, নারীনেত্রী আকলিমা খাতুন লিমা, সমাজকর্মী গোলাম নবী রনি, জেলা লোকমোর্চার সমন্বয়ক গোলাম কিবরিয়া, যুবনেতা জাহিদ হোসেন, আনসার আলী বাবু, হাসান আলী সরকার প্রমুখ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।