স্টাফ রিপোর্টার: পবিত্র ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে বিভিন্ন মসলার দাম বৃদ্ধি পেতে শুরম্ন করেছে। এছাড়া বন্যার কারণে ফসল ড়্গতিগ্রসত্ম হওয়ায় কাঁচা মরিচসহ বেড়েছে সবজির দাম। তাছাড়া অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রীর দাম অপরিবর্তিত রয়েছে।
গতকাল শুক্রবার রাজশাহী মহানগরীসহ এর উপকন্ঠের বাজারগুলোতে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ঈদুল আজহাকে সামনে রেখে বিভিন্ন মসলার দাম বৃদ্ধি পেতে শুরম্ন করেছে। ১৫ দিনের ব্যবধানে এলাচের দাম বেড়েছে কেজিতে ৫শ’ টাকা, দারচিনি বেড়েছে ৮০ টাকা ও শুকনা মরিচ বেড়েছে ৫০ টাকা। এছাড়াও কিছুটা বেড়েছে আদা, রসুন, জিরা ও ধনিয়ার দাম। গতকাল প্রতিকেজি এলাচ ২৮শ’ থেকে ৩ হাজার, দারচিনি ৩৫০ থেকে ৩৮০, শুকনা মরিচ ২শ’, আদা রকমভেদে ১৩০ থেকে ২শ’, রসুন ১১০ থেকে ১৪০, জিরা ৩৫০ থেকে ৪শ’, ধনিয়া ১১০ টাকায় বিক্রি হয়েছে।
এদিকে দেশব্যাপী বন্যার কারণে বিভিন্ন জেলায় ফসলের মাঠ ড়্গতিগ্রসত্ম হয়েছে। এর প্রভাবে রাজশাহীতে কাঁচা মরিচসহ সবজির দাম আরেকদফা বেড়েছে। গতকাল প্রতিকেজি কাঁচা মরিচ ১৮০ থেকে ২শ’ টাকায় বিক্রি হয়েছে। প্রতিকেজি পেয়াঁজ দেশি ৩৫, ভারতিয় ৩০, বেগুন ২৫/৩০, আলু ২০/২৪, পটল ২০/২৫, করোলা ৩০/৩৫, কচু ৪০, শশা ৫০/৬০, পেঁপে ১০, ঢেঁড়স ২০, মিষ্টিকুমড়া ৩০, ডাটা ১৫, লাউ-কুমড়া প্রতিপিস ২০, প্রতিহালি কলা ১০, লেবু ৮ থেকে ১০ টাকায় বিক্রি হয়েছে।
এছাড়া গতকাল খুচরা বাজারে প্রতিকেজি পোলাও এর চাল রকম ভেদে ৭০ থেকে ১শ’ টাকায় বিক্রি হয়েছে। গুটিস্বর্ণা ২৮/৩০, পারিজা/ লালস্বর্ণা ৩২/৩৩, আটাশ ৩৪ থেকে ৪২, মিনিকেট ৪৩ থেকে ৫০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। প্রতিকেজি খোলা আটা ২৮, মুগ ডাল বড়দানা ৬০, ছোটদানা ১২০, মসুর ডাল বড়দানা ৫৫, ছোট দানা ১০৮, ছোলার ডাল ৯০, এংকর ডাল ৪০, খেসারি ডাল ৬০, চিনি ৫২, প্রতিলিটার সয়াবিন তেল খোলা ৭৮, বোতল ১শ’ থেকে ১০৫ টাকায় বিক্রি হয়েছে।
এদিকে গতকাল প্রতিকেজি ছোটমাছ ৩শ’ থেকে ৬শ’, সিলভার কার্প ১২০ থেকে ১৩০, পাঙ্গাস ১২০ থেকে ১৪০, রম্নই-কাতলা ১৮০ থেকে ২৮০, ইলিশ ছোট সাইজ (৫০০ থেকে ৭০০ গ্রাম) ৯শ’ থেকে ১ হাজার টাকা এবং বড় সাইজ (৯০০ গ্রাম থেকে ১ কেজি) ১১শ’ থেকে ১ হাজার ২শ’ টাকায় বিক্রি হয়েছে। প্রতিকেজি গরম্নর মাংস ৫৩০ থেকে ৫৫০, খাসির মাংস ৬৫০ থেকে ৭৫০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। মুরগি ব্রয়লার ১১০ থেকে ১২০, সোনালী ১৬০ থেকে ১৭০, দেশি ৩৮০ টাকায় বিক্রি হয়েছে। গতকাল প্রতিহালি সাদাডিম ৩৪/৩৬ এবং লালডিম ৩৬/৩৮ টাকায় বিক্রি হয়েছে।