স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীর নওহাটা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে নারী ও শিশু নির্যাতন, মাদক, সন্ত্রাস, জঙ্গীবাদ ও কমিউনিটি পুলিশিং সংক্রানত্ম এক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
গতকাল বুধবার সকাল ১০টায় রাজশাহী মেট্রোপলিটন পুলিশের শাহমখদুম ক্রাইম ডিভিশনের উদ্যেগে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়।
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সংসদ সদস্য আয়েন উদ্দিন এবং প্রধান আলোচক ছিলেন, পুলিশ কমিশনার মোঃ হুমায়ুন কবির, বিপিএম, পিপিএম। এছাড়াও সভায় স্কুল শিক্ষক-শিক্ষার্থীসহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এতে অংশগ্রহণ করেন। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপ-পুলিশ কমিশনার (শাহমখদুম), মোহাম্মদ হেমায়েতুল ইসলাম, এডিসি (শাহমখদুম) তরিকুল ইসলাম।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি আয়েন উদ্দিন বলেন, সরকার দেশকে উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করতে নিরলসভাবে কাজ করছে। আর দেশে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টি করে একটি গোষ্ঠি ফায়দা হাসিলের চেষ্টা করছে। এদের থেকে সকলকে সতর্ক থাকতে হবে।
পুলিশ কমিশনার তার বক্তব্যে বলেন, বাংলাদেশে বর্তমানে জনসংখ্যার বোনাসকাল চলছে, অর্থাৎ আমাদের জনসংখ্যার সিংহভাগ হচ্ছে কর্মক্ষম যুবশক্তি, প্রশাসনসহ সমাজের সকল সত্মরের প্রতিনিধির দায়িত্ব এই যুবশক্তিকে দক্ষ জনশক্তিতে রূপানত্মরিত করা। তিনি নারী ও শিশু নির্যাতন, মাদক, সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ সংক্রানত্ম কোন তথ্য জানতে পারলে তাৎক্ষণিক পুলিশকে সহযোগিতা করার আহবান জানান। এছাড়াও সম্প্রতি দেশের বিভিন্ন স্থানে “পদ্মা সেতুর জন্য মানুষের মাথা ও রক্ত লাগবে” এই গুজব সংক্রানেত্ম মানুষকে সচেতন করতে তিনি এলাকার জনপ্রতিনিধি, সুধীসমাজ, কমিউনিটি পুলিশিং এর প্রতিনিধিকে ঘরোয়া বৈঠকের আয়োজন, মসজিদের ইমামকে গুজব ও বিভ্রানিত্ম সৃষ্টি রোধকল্পে বক্তব্য প্রদান, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্র-ছাত্রীদের স্কুল ছুটির পরে নিরাপদে স্কুল থেকে বাসায় ফেরা, ফেইসবুকে গুজব শেয়ার করে ভাইরাল না করার জন্য সকলকে অনুরোধ জানান।
সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন, পবা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মুনসুর রহমান, নওহাটা সরকারি ডিগ্রী কলেজের অধ্যড়্গ আব্দুল খালেক। বক্তব্য রাখেন নওহাটা পৌর মেয়র শেখ মকবুল হোসেন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আরজিয়া বেগম, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা শিমুল বিলস্নাহ সুলতানা, শাহমখদুম থানা কমিউনিটি পুলিশিং এর সভাপতি ফারম্নক হোসেন। উপস্থিত ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান ওয়াজেদ আলী খান, শাহমখদুম থানা অফিসার্স ইনচার্জ এসএম মাসুদ পারভেজ, পবা থানা অফিসার্স ইনচার্জ রেজাউল হাসান, এয়ারপোর্ট থানা অফিসার্স ইনচার্জ নূরে আলম সিদ্দিকী, পবা থানা অফিসার্স ইনচার্জ (তদনত্ম) আবুল কালাম আজাদসহ পুলিশের বিভিন্ন পর্যায়ের কর্মকর্তা, ইমাম, বিভিন্ন শিড়্গা প্রতিষ্ঠানের শিড়্গক, শিড়্গার্থী, জনপ্রতিনিধি ও সুশিল সমাজের প্রতিনিধিগন।