ধামইরহাট (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর ধামইরহাটে স্ত্রীকে হাসুয়া দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে পাষ- স্বামী। ঘটনার পর স্বামী নূরমোহাম্মদ (৩৫) পলাতক রয়েছেন। নিহত গৃহবধূর নাম সাবিনা ইয়াছমিন (৩০)। সোমবার রাত ৯টার দিকে উপজেলার রামরামপুর তেলিপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।
পুলিশ সূত্র জানায়, রামরামপুর তেলিপাড়া গ্রামের ওয়াজেদ আলীর ছেলে নূরমোহাম্মদ মঙ্গলবার রাতের খাবারের সময় তরকারি ভাল না হওয়ায় স্ত্রী সাবিনা ইয়াছমিনের সাথে বাকবিত-ায় লিপ্ত হন। এক পর্যায়ে নূরমোহাম্মদ ড়্গিপ্ত হয়ে তার হাতে থাকা ধারালো হাসুয়া দিয়ে স্ত্রীর পিঠে কোপ দেন নূরমোহাম্মদ। এতে প্রচুর রক্তড়্গরণ হয়ে ঘটনাস’লেই মারা যান স্ত্রী সাবিনা ইয়াছমিন। প্রতিবেশিরা চিৎকার শুনে বাড়ি এসে লাশ দেখে পুলিশে খবর দেয়। ঘটনার পর পলাতক রয়েছেন ঘাতক স্বামী নূরমোহাম্মদ। এ ঘটনায় মৃতের ভাই বুলবুল হোসেন বাদি হয়ে ধামইরহাট থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।
ধামইরহাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাকিরুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ময়না তদনেত্মর জন্য নওগাঁ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।
উলেস্নখ্য, নূরমোহাম্মদ ২ সনত্মানের জনক। প্রায় ৭ বছর পূর্বে ১ম স্ত্রীর সাথে বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে। ঢাকায় রিক্সা চালাতে গিয়ে গার্মেন্টস কর্মী সাবিনার সাথে পরিচয় হয়। পরে পরবর্তী ২য় বিয়েতে আবদ্ধ হন। বিয়ের প্রায় ৩ বছর পর রাজশাহীর মতিহার থানার বাখরাবাজ (ইমামপাড়া) গ্রামের মৃত নূরুল হকের মেয়ে সাবিনা ইয়াসমিনকে নেশাখোর স্বামীর হাতে প্রাণ দিতে হল। নূরমোহাম্মদ ধামইরহাট থানার একাধিক মাদক মামলার আসামি বলে থানা সূত্র জানায়।