স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে চারজন ডেঙ্গু রোগী পাওয়া গেছে। এদের মধ্যে রামেকেরই এক ছাত্র রয়েছেন। এক চিকিৎসকসহ বাকি তিনজন ঢাকায় ডেঙ্গু আক্রানত্ম হয়ে রামেক হাসপাতালে এসে ভর্তি হয়েছেন। তাদের বাড়ি রাজশাহী বলে ঢাকা থেকে তাদের রাজশাহীতে পাঠানো হয়েছে।
রামেকের ডেঙ্গু আক্রানত্ম ছাত্রের নাম জাহান আলম। তিনি চতুর্থ বর্ষের ছাত্র। গত সোমবার রামেক হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। তার বাড়ি দিনাজপুর জেলার কামালপুরে। ঢাকা থেকে আসা অন্য তিনজন হলেন- নাটোর লালপুরের সালাউদ্দিন (২৮), রাজশাহীর মোহনপুরের শফিকুল ইসলাম (৩০) ও রাজশাহী নগরীর ভাটাপাড়া এলাকার ইমরান মালিথা (২৮)। তিনি গত বছর রামেক থেকে ইন্টার্নি শেষ করেছেন। তিনি ঢাকা থেকে আক্রানত্ম হয়ে গত সোমবার ভর্তি হয়েছেন।
আর শফিকুল ও সালাউদ্দিন ঢাকার বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকরি করতেন। সেখানেই ডেঙ্গু জ্বর হলে তাদের বাড়ি রাজশাহীতে হওয়ায় ঢাকার চাপ কমাতে তাদের রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড (ছাত্রপত্র দিয়ে আনত্র পাঠানো) হয় বলে তাদের স্বজনেরা জানিয়েছেন। এদের মধ্যে সালাউদ্দিন গত সোমবার এবং শফিকুল ইসলাম গত মঙ্গলবার রামেক হাসপাতালে ভর্তি হন।
রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের উপ-পরিচালক সাইফুল ফেরদৌস বলেন, রামেক হাসপাতালে বর্তমানে চারজন রোগী চিকিৎসাধীন আছেন। তাদের অবস্থা ভালো। তিনি বলেন, ডেঙ্গু রোগীদের জন্য আলাদা বোর্ড গঠন করা হয়েছে। পাশাপাশি বস্নাড ব্যাংকেও পর্যাপ্ত রক্তের চাহিদা দেওয়া আছে। এজন্য রক্তের চাহিদাও আমরা মেটাতে পারব।
তিনি আরও বলেন, রোগীদের সকল খরচ সরকারিভাবে করা হচ্ছে। যেকোনও পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য সবকিছু প্রস্তুত রাখা হয়েছে। এছাড়া ডেঙ্গু প্রতিরোধে আলাদা ওয়ার্ড তৈরি করা হয়েছে। বর্তমানের ১৭ নম্বর কেবিনকে আধুনিকায়ন করে ডেঙ্গু মোকাবিলায় আলাদা ওয়ার্ড হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে বলেও জানান রামেক হাসপাতালের এই কর্মকর্তা।