স্টাফ রিপোর্টার : গোদাগাড়ীতে নির্বাচনী সহিংসতায় নিহত ইসমাইল হত্যা মামলার আসামি আব্দুল মালেক পান্নার জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে জেল হাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।
গতকাল বুধবার রাজশাহীর চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. মেহেদী হাসান তালুকদার এই আদেশ দেন।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায় আসামি পান্না হাইকোর্ট থেকে তিন সপ্তাহের জামিনে ছিলেন। গতকাল তার জামিনের মেয়াদ শেষ হলে আইনজীবী রজব আলী আসামিকে আত্মসর্ম্পন করে জামিনের আবেদন করলে তা নামঞ্জুর করেণ আদালত। আসামি আব্দুল মালেক পান্না মামলার এজাহার নামীয় ১৯ নং আসামি। তার বাবার নাম ফজলুর রহমান। বাড়ি গোদাগাড়ী উপজেলার কাজীহাটা গ্রামে।
মামলার আরজি থেকে জানা যায়, গত ৩০/১২/২০১৮ ইং জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দিন স্থানীয় নৌকা প্রতীকের পড়্গে একটি ভোট কেন্দ্রের সীমানার বাইরে পাটি বিছিয়ে ভোটাদের সিরিয়াল নম্বর দিচ্ছিলেন গোদাগাড়ী থানার কাজীহাটা গ্রামের ইসমাইল হোসেন। এ সময় আসামিরা হাসুয়া, কানত্মা, ডেগার, লোহার রড, চাইনিজ কুড়াল, সাবল ইত্যাদি মারাত্মক অস্ত্রসস্ত্রে সজ্জিত হয়ে ইসমাইল হোসেন ও তার ছেলে নাইম আহম্মদকে ঘিরে ফেলে এলোপাথারিভাবে মারপিট করতে থাকে। সেখান থেকে উদ্ধার করে ইসমাইল হোসেনকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন থাকাবস্থায় পরেরদিন তিনি মারা যান। এরপর গত ২ জানুয়ারি ইসমাইলের স্ত্রী বিজলা বেগম গোদাগাড়ী মডেল থানায় ২২ জনের নাম উলেস্নখসহ অজ্ঞাতনামা ৫০/৬০ জনের বিরম্নদ্ধে মামলা দায়ের করেন। গোদাগাড়ী মডেল থানার মামলা নং-২, তাং- ২/১/২০১৯ ইং। রাষ্ট্রপড়্গে জামিনের বিরোধীতা করেন অতিরিক্ত সরকারী কৌঁসুলী আহসান হাবিব রঞ্জু।