স্টাফ রিপোর্টার: বাংলাদেশের বিশিষ্ট লেখক, সাংবাদিক ও একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির বলেছেন, সামাজিক ও প্রাকৃতিক বিপর্যয় মোকাবিলার জন্য আমরা জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বর্ষে বৃড়্গ রোপণ কর্মসূচি পালন করছি।
গতকাল সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি আয়োজিত রাজশাহী কোর্ট মহাবিদ্যালয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বর্ষে শতবৃড়্গ রোপণ কর্মসূচি উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথা বলেন।
শাহরিয়ার কবির বলেন, সামাজিক ও প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের হাত থেকে দেশকে রড়্গার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী পালিত হবে ২০২০ সালের ১৭ই মার্চ। জাতির পিতার ১০০তম জন্মদিন উদযাপনকালে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা ২০২০-২০২১ সালকে মুজিববর্ষ ঘোষণা দিয়েছেন। সামাজিক ও প্রাকৃতিক বিপর্যয় রোধে এ বৃড়্গ রোপণ কর্মসূচি।
লেখক শাহারিয়ার কবির আরো বলেন, আমরা ২৭ বছর ধরে মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী ও যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবিতে আন্দোলন করে আসছি। জঙ্গিবাদও ও সাম্প্রদায়িক শক্তির বিরম্নদ্ধে লড়াই করছি। এরকম সামাজিক বিপর্যয় ও শিল্পোন্নত দেশগুলোর বায়ূ দূষণের ফলে প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের দিকে আমাদের ঠেলে দেয়া হয়েছে। এ অবস্থা থেকে দেশকে রড়্গার জন্য এ কর্মসূচি পালন করছি। তিনি ৪টি গাছের চারা দেখিয়ে বলেন, এটা বঙ্গবন্ধুর চার মূল নীতি। বঙ্গবন্ধুর ডাকে মুক্তিযোদ্ধারা মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করে দেশের স্বাধীনতাকে ছিনিয়ে এনেছে। কিন্তু বঙ্গবন্ধু শুধু একটি দেশই চাননি। তিনি চেয়েছিলেন একটি আদর্শিক দেশ। যে আদর্শের মূল ভিত্তি হবে চার মূল নীতি। তারই প্রতীকী হিসাবে চারটি গাছকে দেখানো হয়েছে।
তিনি বলেন, যে বাংলাদেশ হবে অসাম্প্রদায়িক গণতান্ত্রিক শোষণমুক্ত মানবিক,ন্যায়পরায়ণতাকে ধারণ করবে সেই বাংলাদেশ। যুদ্ধাপরাধীর বিচার হলেও এখনো স্বাধীনতা বিরোধীরা দেশে ধর্মের নামে বিভা্রনত্ম করছে। তারা সমাজে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করছে। তাই সামাজিক ও প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের হাত থেকে দেশকে রড়্গার জন্য গাছ রোপণ করছি। দেশ মাতৃকার জন্য যারা শহিদ হয়েছেন তাদের স্মরণে বৃড়্গ রোপণ করছি। গণহত্যার স্বীকৃতির জন্য বৃড়্গ রোপণ করছি, দেশ ও মানুষকে বাঁচানোর জন্য বৃড়্গ রোপণ করছি। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করে এগিয়ে যাবার জন্য আমাদের বৃড়্গ রোপণ করতে হবে। তিনি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর জন্মশত বর্ষে শতবৃড়্গ রোপণ কর্মসূচি উদ্বোধন কারেন।
অনুষ্ঠানে রাজশাহী সদর আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা উপস্থিত ছিলেন। এতে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রীয় একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সাধারণ সম্পাদক কাজী মুকুল, সহসাধারণ সম্পাদক শহিদ সনত্মান ডা. নুজহাত চৌধুরী সম্পা।
কোর্ট মহাবিদ্যালয়ের অধ্যড়্গ একে এম কামরম্নজ্জামানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন রাজশাহী জেলা ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান আলী বরজা্‌হান, সাধারণ সম্পাদক অধ্যড়্গ রাজকুমার সরকার, ২নং ওয়ার্ড আ.লীগ সভাপতি সেলিম রেজা। অনুষ্ঠান পরিচালনা করে মহানগর নির্মূল কমিটির সাধারণ সম্পাদক মনিরম্নজ্জামান উজ্জল। অনুষ্ঠান শেষে কলেজ চত্বরে ৪টি গাছের চারা রোপণ করা হয়।