শিরিন সুলতানা কেয়া: এবার আষাঢ় মাস শুরম্ন হওয়ার পরও বৃষ্টির জন্য রাজশাহীর মানুষকে বেশ কয়েকটা দিন অপেড়্গা করতে হয়েছে। আষাঢ়ের অর্ধেক যাওয়ার পর থেকে নিয়মিতই বৃষ্টিপাত হচ্ছে। গতকাল সোমবারও বিকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যনত্ম রাজশাহীতে বৃষ্টি হয়েছে। রাতেও মেঘে ঢেকে ছিল আকাশ।
প্রখর রোদ কিংবা ঝুম বৃষ্টিতে ছোট-বড় সবারই একটাই সঙ্গী ছাতা। গ্রীষ্মের রোদ থেকে বাঁচার জন্য যেমন অনেকেই বাহারী রকমের ছাতা ব্যবহার করেন তেমনি বর্ষার বৃষ্টিতেও ফ্যাশনেবল ছাতা ব্যবহার করতে দেখা যায়। তাই গ্রীষ্ম অথবা বর্ষায় ভিড় হয় বিভিন্ন ধরনের ছাতার দোকানে। আবার যাদের ছাতার কিছুটা অংশ নষ্ট হয় তারা নতুন না কিনে ভিড় করেন ছাতা মেরামতকারীদের কাছে।
ছাতার মেরামতকারীরা বলছেন, গ্রীষ্মে ছাতা মেরামত কম হলেও তা বেড়ে যায় বর্ষাকালে। এতে তাদের আয়-রোজগারও কিছুটা বাড়ে। বছরের অন্য সময় তাদের তালা-চাবি মেরামতের কাজ করতে হলেও বর্ষায় উপার্জনের বাড়তি জায়গা হিসেবে তারা ছাতা মেরামত করে থাকেন। এবারও বৃষ্টি শুরম্ন হওয়ার পর বেড়েছে ছাতা মেরামতের চাপ।
নগরীর সাহেববাজারর জিরোপয়েন্টে রাসত্মার পাশের একটি দোকানে ছাতা মেরামত করতে দিয়েছিলেন আসফিয়া আরেমিন রিমি। তিনি বলেন, ছাতাটি হালকা ভেঙ্গে গেছে। তাই ঠিক করতে দিলাম। নতুন কিনতে তিন থেকে চারশো টাকা লাগতো। কিন্তু ঠিক করতে এতো টাকা লাগবে না। তাই মেরামত করে নিচ্ছি। কারণ, বর্ষায় এখন ছাতা ছাড়া বের হওয়ার জো নেই। একই কথা শোনা যায় রাফা তাজনিমের কথায়। তিনিও বলেন, ছাতার কয়েকটা শিক ভেঙে গেছে। তাই নতুন না কিনে ঠিক করতে দিলাম।
নগরীর সাহেববাজারে বসেন ছাতা মেরামতকারী মোহাম্মদ মাসুম। ২২ বছর ধরেই তিনি এই পেশার সাথে জড়িত। মাসুম বলেন, আমার এই কাজ করতেই ভাল লাগে। দিনে তিন থেকে চারশো টাকা হয়। বর্ষার সময়েই আয় ভাল হয়। তাই বলতে গেলে সারাবছর বর্ষার জন্যই অপেড়্গা করি।
নগরীর বিনোদপুর বাজারে বসেন ছাতা মেরামতকারী কাদির হোসেন। তিনি বলেন, আমি অসুস্থ। তেমন ভারী কাজ করতে পারি না। তাই বসে থেকে এই কাজ করি। প্রতিদিন চারশো থেকে পাঁচশো টাকা হয়। আবার কোনদিন এর চেয়ে কমও হয়। তবে গরমের তুলনায় বর্ষাকালেই ছাতা নষ্ট হয় বেশি। তাই কাজও হয় বেশি।
নগরীর কাজলায় বসেন হোসেন আলী। তিনি বলেন, আমি আগে রিঙা চালাতাম। অসুস্থতার জন্য চালাতে পারছি না। কোন কাজই তো পাচ্ছি না। তাই বসে না থেকে ছাতা মেরামতের কাজ করছি। দিনে দুইশো থেকে পাঁচশো টাকা পর্যনত্ম হয়। আবারো কখনো এর কমও হয়। তবে এই দিয়েই সংসার চলছে। অভিজ্ঞতা বেশি দিনের না হলেও হোসেন আলীও জানান, বর্ষাকাল এলে ছাতা মেরামত বেশি হয়।