বাগাতিপাড়া (নাটোর) প্রতিনিধি: নাটোর-বাগাতিপাড়া প্রধান সড়কের বিভিন্ন স’ানে ভেঙে যাওয়ায় জনদুর্ভোগের সৃষ্টি হয়েছে। বর্ষা মৌসুমে এ দুর্ভোগের মাত্রা আরও বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে জনগনের মাঝে অভিযোগ নয়, দানা বাঁধছে ৰোভের।
সড়ক জুড়ে অসংখ্য ছোট-বড় গর্তে বৃষ্টির পানি জমে থাকছে। ফলে মাঝে মধ্যেই দূর্ঘটনার শিকার হচ্ছে যান বাহন। উপজেলার কসবে মালঞ্চি থেকে তমালতলা বাজার হয়ে হাজিপাড়া পর্যন্ত প্রায় পৌনে ২ কিলোমিটার অংশে এমনই বেহাল অবস’া।
সরেজমিনে দেখা যায়, বাগাতিপাড়ার মালঞ্চি বাজার হতে কসবে মালঞ্চি পর্যন্ত গত বছরে সড়ক প্রশস্তকরণ ও সংস্কার কাজ করা হয়েছে। কিন্তু কসবে মালঞ্চি থেকে আর কোন সংস্কার না হওয়ায় তমালতলা বাজার হয়ে হাজিপাড়া পর্যন্ত সড়কের বিভিন্ন অংশ ভেঙে ছোট-বড় গর্তের সৃষ্টি হয়েছে। কোথাও কোথাও পিচ উঠে গিয়ে ইট-সুরকি পর্যন্ত নেই। বিশেষ ভাবে তমালতলা মোড় বাজারের উত্তর মাথায় গভীর গর্তে পানি জমে থাকায় চরম ভোগান্তিতে পড়েছেন চলাচলকারিরা।
স’ানীয় সাবেক ইউপি মেম্বর আজিজুল হাকিম বলেন, বাগাতিপাড়া উপজেলার পাঁকা, জামনগর, সদর ইউনিয়নের বেশিরভাগ মানুষকে জেলা শহরের সাথে যোগাযোগের জন্য এই প্রধান সড়ক ব্যবহার করতে হয়। তাছাড়া জেলার সর্ববৃহৎ আমের আড়ত তমালতলা বাজার। এখানে প্রায় প্রতিদিন দুই থেকে আড়াই কোটি টাকার আম বেচা-কেনা হয়। আম পরিবহনের জন্য ট্রাকসহ বিভিন্ন যান-বাহনের যাতায়াত রয়েছে। কিন্তু সড়কটি নিয়ে কারও মাথা ব্যথা নেই। যত ভোগান্তি চলাচলকারিদের। জনগুরুত্বপূর্ণ সড়কটি দ্র্বত সংস্কারের দাবি জানান তিনি।
স’ানীয়রা জানান, সড়কটি নিয়ে কোন অভিযোগ করে লাভ হয় না। সংস্কারে এখন আন্দোলনে নামতে হবে। এছাড়া আর কোন উপায় নেই।
এ বিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী এস এম শরীফ উদ্দিন খান বলেন, কয়েকটি সড়ক নিয়ে একটি প্যাকেজ প্রজেক্টের আওতায় এই সড়কের কাজ হবে। এরমধ্যেই এর টেন্ডার প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে। তবে কার্যাদেশ দেয়া হয়নি। ঢাকা থেকে অনুমোদন হলে কসবে মালঞ্চি হতে বাগাতিপাড়া উপজেলার সীমানা পর্যন্ত সড়কটির প্রশস্তকরণ ও সংস্কার কাজ হবে।