২৯ ও ৩০ জুলাইয়ের বাসের টিকিট মিলছে না

অনলাইন ডেস্ক: আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে বাসের অগ্রিম টিকিট না ছাড়লেও ২৯ ও ৩০ জুলাইয়ের টিকিট বিক্রি শেষ হয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন দূরপাল্লার পরিবহন কাউন্টার মাস্টাররা। রোববার (২৬ জুলাই) রাজধানীর গাবতলী, টেকনিক্যাল, কল্যাণপুর, শ্যামলী, কলাবাগান বাস কাউন্টার ঘুরে এ তথ্য জানা গেছে।

রাজধানী থেকে দেশের দক্ষিণাঞ্চলে যাতায়াত করা সাকুরা পরিবহনের ম্যানেজার মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, করোনাভাইরাসের কারণে এবার ঈদের অগ্রিম টিকিট ছাড়া হয়নি। স্বাভাবিক দিনের মতো করেই টিকিট বিক্রি হচ্ছে। ঈদ উপলক্ষে ২৯ ও ৩০ জুলাইয়ের টিকিটের চাপ ছিলো ওইদিনের টিকিট শেষ। ২৮ তারিখের কয়েকটি টিকিট আছে।

তিনি বলেন, করোনার কারণে পরিবহন ব্যবসা খুব খারাপ যাচ্ছে। ৪০ সিটের বাসে ২০ জন যাত্রী নিয়ে যেতে হচ্ছে।  ঢাকা থেকে বরিশালের ভাড়া রাখা হচ্ছে ৬০ শতাংশ বৃদ্ধি করে ৮২০ টাকা।  তাতে ২০ জন যাত্রী নিয়ে যাওয়া আসায় যে খরচ হয় তা এই যাত্রী নিলে পোষাতে পারছি না।  শুধুমাত্র রুটটা ঠিক রাখার জন্য বাস চালাতে হচ্ছে।

গাবতলী বাস টার্মিনালের হানিফ পরিবহনের কাউন্টার মাস্টার মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম বলেন, করোনার কারণে গত কয়েক মাস ধরে বাসে যাত্রী ছিল না।  ঈদের কারণে এখন কিছু যাত্রী পাচ্ছি।  কিন্তু ৪০ জনের বাসে ২০ জন যাত্রী নিয়ে ঈদের সময় চলাচল করে পোষায় না।  তাই খুব সমস্যার মধ্যে আছি।

ঈদে বাস বাড়ানো হবে কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বাস বাড়ানোর কোন সম্ভাবনা নেই।  কারণ এখন যে বাস চলাচল করছে তাতেই আমাদের লস হচ্ছে। তাই মালিক আর লস দেওয়ার জন্য বাস বাড়াবে না। যাত্রীদের তেমন চাপ নেই।

কলাবাগান বাসস্ট্যান্ডে অবস্থিত সেন্টমার্টিন পরিবহনের ম্যানেজার নাজমুল ইসলাম বলেন, করোনার কারণে এ বছর ঈদের অগ্রিম টিকিট বিক্রি হচ্ছে না।  যে যখন আসছে টিকিট থাকলে কেটে নিয়ে যাচ্ছে। ঈদের আগের দিন আসলেও টিকিট থাকলে যাত্রীরা যেতে পারবে।

 

সোনালী/এমই

শর্টলিংকঃ