সিরাজগঞ্জে কিশোরীকে ধর্ষণ মামলায় ৬ জনের যাবজ্জীবন

সোনালী ডেস্ক: সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলায় কিশোরীকে গণধর্ষণের দায়ে ৬ জনের যাবজ্জীবন কারাদÐ দিয়েছে আদালত। সিরাজগঞ্জের নারী ও শিশুনির্যাতন দমন ট্রাইবুন্যাল ১-এর বিচারক ফজলে খোদা মো. নাজির গতকাল বৃহস্পতিবার এ রায় ঘোষণা করেন। একই সঙ্গে প্রত্যেক আসামিকে ১ লাখ টাকা করে জরিমানা করেছে আদালত। এ টাকা সাজাপ্রাপ্তদের সম্পত্তি বিক্রি করে কিশোরীকে দেওয়ার জন্য জেলা প্রশাসককে নির্দেশও দিয়েছে আদালত।
সাজাপ্রাপ্তরা হলেন, সদর উপজেলার পাড়পাঁচিল গ্রামের মোজাহার আলীর ছেলে মো. রাসেল ওরফে রবিউল (২৫), একই গ্রামের সুলতান মিয়ার ছেলে নাজমুল (২৪), নুরু ওরফে নুর ইসলাম (২৬), আলতাফ মিয়ার ছেলে মোমিন (৩৪), ভাটপিয়ারী গ্রামের ময়দান আলীর ছেলে সোহেল (২৬) ও একই গ্রামের দানেজ আলীর ছেলে রাজ্জাক (৪৪)। রায় ঘোষণার সময় চার আসামি আদালতে উপস্থিত থাকলেও সোহেল ও মোমিন পলাতক রয়েছেন।
ওই আদালতের পিপি শেখ আবদুল হামিদ লাভলু মামলার নথির বরাতে জানান, ১৮ বছর বয়সী এক কিশোরীকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে যমুনা নদীর ভাটপিয়ার চরে যেতে বলেছিলেন রাসেল। ২০১৬ সালের ২০ এপ্রিল সেখানে গেলে রাসেল ও তার বন্ধুরা তাকে ধর্ষণ করেন। কিশোরী জ্ঞান হারালে তারা তাকে আখখেতে ফেলে পালিয়ে যান। পরে তার জ্ঞান ফেরে। বাড়ি ফেরার পথে আরেকজন তাকে ধর্ষণ করে। পরে কিশোরীর ফোন পেয়ে স্বজনরা উদ্ধার করে। তাকে সিরাজগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় কিশোরীর ভাই সদর থানায় মামলা করেন। তদন্ত শেষে ওই থানার পরিদর্শক (তদন্ত) বাসুদেব সিনহা ছয়জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দেন। পিপি হামিদ বলেন, অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় আদালত ছয় আসামিকে দোষী সাব্যস্ত করে যাবজ্জীবন দিয়েছে। পলাতক দুই আসামি আটকের দিন থেকে তাদের সাজা শুরু হবে।

শর্টলিংকঃ