সিনহার নামে মামলা হুদার বির্বদ্ধেও প্রতিবেদন ৪ মে

এফএনএস: সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার বির্বদ্ধে মিথ্যা তথ্য দিয়ে মামলা করায় সাবেক যোগাযোগমন্ত্রী নাজমুল হুদার বির্বদ্ধে করা মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ৪ মে দিন ধার্য করেছেন আদালত।
গতকাল রোববার মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য দিন ধার্য ছিল। কিন’ মামলার তদন্ত কর্মকর্তা প্রতিবেদন দাখিল না করায় ঢাকা মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমর্বল কায়েশ প্রতিবেদন দাখিলের জন্য নতুন এ দিন ধার্য করেন। এর আগে ১৯ ফেব্র্বয়ারি রাজধানীর সেগুনবাগিচায় দুদকের ঢাকার বিভাগীয় কার্যালয়-১ এ দুদকের পরিচলক সৈয়দ ইকবাল হোসেন বাদি হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। গত ৪ ডিসেম্বর ঘুষ গ্রহণের অভিযোগে সাবেক প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার বির্বদ্ধে ব্যারিস্টার নাজমুল হুদার দায়ের করা মামলার তথ্য ‘মিথ্যা’ প্রমাণিত হওয়ায় মামলা করা হয়। একই সঙ্গে এস কে সিনহাকে অভিযোগ থেকে অব্যাহতি দিয়েছে দুদক। ২২ জানুয়ারি চূড়ান্ত প্রতিবেদন গ্রহণ করে সিনহাকে এ মামলার দায় থেকে অব্যাহতি প্রদান করা হয়। ২০১৮ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর ঘুষ চাওয়ার অভিযোগ তুলে সুরেন্দ্র কুমার সিনহার বির্বদ্ধে বাংলাদেশ জাতীয় জোটের (বিএনএ) চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা বাদি হয়ে শাহবাগ থানায় এ মামলা করেছিলেন। মামলায় নাজমুল হুদা অভিযোগ করেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকারের আমলে তার বির্বদ্ধে দায়ের হওয়া একটি মামলা উচ্চ আদালতে ‘ডিসমিস’ করার পরও প্ররোচিত হয়ে মামলাটির রায় পরিবর্তন করা হয়। মামলাটি ‘ডিসমিস’ করতে দুই কোটি টাকা ও অন্য একটি ব্যাংক গ্যারান্টির আড়াই কোটি টাকার অর্ধেক এক কোটি ২৫ লাখ টাকা উৎকোচ চেয়েছিলেন এস কে সিনহা। ঘুষ চাওয়ার অভিযোগে ২০১৮ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর এসকে সিনহার বির্বদ্ধে বাংলাদেশ জাতীয় জোটের (বিএনএ) চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা বাদি হয়ে শাহবাগ থানায় মামলা করেন। অভিযোগে বলা হয়, একটি মামলা প্রথমে খারিজ করার পর রায় পরিবর্তন করা হয়। এই মামলা থেকে অব্যাহতি দিতে নাজমুল হুদার কাছ থেকে ২ কোটি টাকা ও অন্য একটি ব্যাংক গ্যারান্টির আড়াই কোটি টাকার অর্ধেক উৎকোচ চেয়েছিলেন এস কে সিনহা।

শর্টলিংকঃ