সাম্প্রদায়িক শক্তি দেশের ঐতিহ্য নষ্ট করতে চায়: কাদের

আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। ফাইল ছবি

অনলাইন ডেস্ক: স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তির পৃষ্ঠপোষকতায় উগ্র সাম্প্রদায়িক শক্তি দেশের হাজার বছরের লালিত ঐতিহ্যকে নষ্ট করতে চায় বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। এদের বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধাদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান তিনি।

মঙ্গলবার (১৯ জানুয়ারি) দুপুরে আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক উপ-কমিটি আয়োজিত আলোচনা সভায় এ আহ্বান ওবায়দুল কাদের।

বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। ওবায়দুল কাদের তার সরকারি বাসভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সভায় যুক্ত হন।

বহুধা বিভক্ত মুক্তিযোদ্ধাদের ঐক্যবদ্ধ করে অভিন্ন প্ল্যাটফর্মে নিয়ে আসার প্রত্যয় ব্যক্ত করে ওবায়দুল কাদের বলেন, দেশবিরোধী অপশক্তি মুক্তিযুদ্ধের অবিনাশী চেতনা নস্যাৎ করার অপতৎপরতা অব্যাহত রেখেছে। এই অপশক্তি গণতন্ত্র, প্রগতি ও উন্নয়নের প্রধানতম প্রতিবন্ধক। মুক্তিযোদ্ধারা আজ দৃশ্যত বিভক্তির মধ্যে আছে, এ বিভক্তি মুক্তিযুদ্ধের অর্জন ও চেতনাকে দুর্বল করে দিচ্ছে।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে অনেক চড়াই-উৎরাই পেরিয়ে ও সংগ্রামের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের গণতন্ত্র এবং অর্থনৈতিক উন্নয়নে অভূতপূর্ব সাফল্য অর্জন করে এগিয়ে চলছে দেশ। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য যে, স্বাধীনতার ৫০ বছরে এসেও দেশবিরোধী ষড়যন্ত্র ও চক্রান্ত্রে লিপ্ত সাম্প্রদায়িক শক্তি। এই অপশক্তিকে মোকাবিলা করে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উজ্জীবিত হয়ে জাতিকে স্বাধীনতার স্বপ্নসাধ বাস্তবায়নে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ারও আহ্বান জানাই।

ওবায়দুল কাদের বলেন, জনগণ দ্বারা প্রত্যাখ্যাত হয়ে মুক্তিযুদ্ধ বিরোধী অপশক্তির প্রতিভূ বিএনপি বারবার প্রতারণা ও চাতুর্যের আশ্রয় নিচ্ছে। তাদের চাতুর্য আছে কিন্তু নৈতিকতা নেই, জনগণের মুখোমুখি দাঁড়াবার সৎ সাহস এবং রাজনৈতিক অবস্থানও নেই। বিএনপি নেতারা হঠাৎ ঘুম থেকে জেগে চিরাচরিত মিথ্যাচারের রেকর্ড বাজাচ্ছে, তারা শীতনিন্দ্রায় রয়েছে।

তৃতীয় ও ৪র্থ ধাপের পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের যারা বিদ্রোহী হয়ে নির্বাচন করতে চাচ্ছে তাদের দলের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টি না করে অনতিবিলম্বে সরে দাঁড়াতে কঠোর নির্দেশ দেন ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, দলের স্বার্থে সবাইকে নৌকার পক্ষে কাজ করতে হবে। সব ভেদাভেদ ভুলে আওয়ামী লীগের নৌকার প্রার্থীর হয়ে কাজ করতে হবে, যারা বিদ্রোহ করছে বা করবে তাদের আর কোনো ছাড় দেওয়া হবে না। দলের সিদ্ধান্ত মেনেই রাজনীতি করতে হবে।

আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক উপ-কমিটির চেয়ারম্যান রশীদুল আলম, সদস্য সচিব ও আওয়ামী লীগের মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক মৃণাল কান্তি দাস প্রমুখ।

সোনালী/জেআর

শর্টলিংকঃ