সাপাহারে সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ৩

সাপাহার (নওগাঁ) প্রতিনিধি: নওগাঁর সাপাহারে বিবদমান পুকুরে মাছ ধরাকে কেন্দ্র করে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে একজন নিহত ও তিনজন গুরুতর আহত হয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার শ্রীধর বাটি গ্রামে ।
জানা গেছে, ওই গ্রামে অবস্থিত দুই মৌজায় (দুই সীমানার) একটি পুকুর নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে আলাদীপুর গ্রামের আ: সালামের দল এবং শ্রীধর বাটি গ্রামের মোক্তার হোসেনের দলের মধ্যে বিবাদ চলে আসছিল। গত বুধবার মোক্তার পক্ষের লোকজন বিকালে উক্ত পুকুরে মাছ ধরতে গেলে আব্দুস সালামের লোকজন বাধা দেয়। এসময় উভয় পক্ষের মধ্যে এক রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ সৃষ্টি হয়। সৃষ্ট সংঘর্ষে আব্দুস সালাম পক্ষের লোকজনরা তাদের হাতে থাকা হাসুয়া, বল্লম দ্বারা মোক্তার পক্ষের লোকজনের ওপর এলোপাতাড়ি হামলা চালায়। এসময় তাদের হাসুয়ার কোপে মোক্তার হোসেনের বড় ভাই মৃত হাবিবুর রহমানের ছেলে ইজাবুল হক (৪৫), তার ছোট ভাই আবুল কালাম (৪০) সাহিন (৩৫) এবং এদের চাচাত ভাই রফিকুল ইসলামের ছেলে শাহজামাল (২৫) গুরুতর আহত হয়। তৎক্ষণাত তারা আহতদের সাপাহার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়।
এসময় জরুরি বিভাগে কর্তব্যরত চিকিৎসক মাথায় গুরুতর আঘাত প্রাপ্ত ইজাবুল হক এর অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তরিত করেন। অপর তিনজনকে সাপাহার স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় মোক্তার হোসেন স্থানীয় থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দাখিল করেন। রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ইজাবুল হক গতকাল রাত তিনটার দিকে মৃত্যুবরণ করে। ইজাবুলের মৃত্যু সংবাদ পেয়ে পুলিশ রাতেই হাসপাতালে ভর্তি থাকা সালামসহ আলাদীপুর গ্রামের তার ছেলে জামাল হোসেন (৪০) পাশ্ববর্তী পোরশা উপজেলার কালাইবাড়ী গ্রামের মনিরুল ইসলামের ছেলে ও সালামের দুলাভাই কাবির হোসেন (৩৫) কে হাসপাতাল থেকে গ্রেপ্তার করে। পরে তাদের বিরুদ্ধে হত্যা মামলা দায়ের করে আসামিদেরকে জেলা আদালতে প্রেরণ করে পুলিশ।

শর্টলিংকঃ