‘সর্বোচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ ৫ জেলায় লকডাউন দিতে হবে’

  • 54
    Shares

অনলাইন ডেস্ক: দেশে করোনা সংক্রমণ ভয়াবহরূপে ছড়িয়ে পড়েছে। দেশে গড় শনাক্তের হার ২৩ শতাংশে পৌঁছে গেছে। ইতোমধ্যে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ৩০ জেলাকে অধিক ঝুঁকিপূর্ণ হিসাবে চিহ্নিত করেছে।

দেশের করোনা পরিস্থিতি আরও ভয়ংকর হয়ে ওঠার আগেই কঠোর বিধিনিষেধ আরোপ করা প্রয়োজন বলে মনে করছেন জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।

তারা বলছেন, দেশ ও দেশের মানুষকে বাঁচাতে হলে এখনই, এই মুহূর্তে ঢাকাসহ সর্বোচ্চ সংক্রমণ প্রবণ ৫টি শহরে কারফিউ (লকডাউনের আদলে) জারি করতে হবে।

বাকি ঝুঁকিপূর্ণ জেলাগুলোতে কঠোরভাবে সরকার নির্দেশিত ১৮ দফা বিধিনিষেধ প্রতিপালন করতে হবে। অন্যথায় আসছে সপ্তাহে দৈনিক আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১০ হাজার ছাড়িয়ে গেলেও অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ফার্মাকোলজি বিভাগের অধ্যাপক ডা. সায়েদুর রহমান বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে দেশে লকডাউন দেওয়া ছাড়া কোনো বিকল্প নেই। বিশেষ সর্বোচ্চ ঝুঁকিপূর্ণ ৫টি জেলায় (ঢাকা, চট্টগ্রাম, গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ ও মৌলভীবাজার) কারফিউর আদলে লকডাউন দিতে হবে। লকডাউন ঘোষণা-পরবর্তী ১৪ দিন কঠোরভাবে সেটি প্রতিপালন করতে হবে।

‌‘দিনের একটি নির্দিষ্ট সময় এক বা দুই ঘণ্টার জন্য কারফিউ শিথিল করা হবে। যখন সবাই তাদের নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যগুলো কিনতে পারে।’

অধ্যাপক সায়েদুর বলেন, এছাড়া উচ্চ সংক্রমণপ্রবণ ৩০টি জেলায় সরকারি নির্দেশিত ১৮ দফা কঠোরভাবে প্রতিপালন করতে হবে। অন্যথায় আগামী সপ্তাহে দেশে দৈনন্দিন আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বর্তমানের দ্বিগুণ হয়ে যাবে।

প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে গত বছর ৮ মার্চ করোনাভাইরাসের প্রথম সংক্রমণ ধরা পড়ে। প্রথম রোগী শনাক্তের ১০ দিন পর ১৮ মার্চ প্রথম মৃত্যুর ঘটনা ঘটে।

সোনালী/জেআর

শর্টলিংকঃ