সচিবালয়ে অগ্নিদুর্ঘটনা ঘটলে মোকাবিলা কঠিন হবে: ফায়ার সর্ভিস

এফএনএস: প্রশাসনিক কেন্দ্রবিন্দু সচিবালয়ে পিক আওয়ারে যদি কোনো দুর্ঘটনা ঘটে তাহলে তা মোকাবিল করা কঠিন হবে বলে জানিয়েছেন ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স ঢাকার মহড়ার ইনসিডেন্ট কমান্ডার সহকারী পরিচালক শালেহ উদ্দীন।
তিনি বলেন, মহড়া পরিচালনার জন্য যেসব বড় গাড়ি নিয়ে এসেছিলাম সেগুলো সচিবালয়ের বাইরেই রাখতে হয়েছে। কারণ গেটে সমস্যা থাকায় মহড়ার জন্য যেসব গাড়ি নিয়ে আসা হয়েছিল সেগুলোর অধিকাংশই সচিবালয়ে প্রবেশ করতে পারেনি। গতকাল বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সহযোগিতায় বেলা সাড়ে ১১টার দিকে অগ্নিনির্বাপন ও উদ্ধার বিষয়ক সচেতনতামূলক এ মহড়া চালানো হয়। সচিবালয়ের চার নম্বর ভবনে অগ্নিনির্বাপন ও উদ্ধার বিষয়ক সচেতনতামূলক মহড়া চালিয়েছে ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্সের কর্মীরা।
ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স ঢাকার সহকারী পরিচালক শালেহ উদ্দীন বলেন, আমরা সব সময় বিভিন্ন শিল্পকারখানা, স্কুলসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে মহড়া দেই। প্রশাসনের প্রাণকেন্দ্র সবিচালয়েও বিশেষ গুর্বত্ব দিয়ে মহড়া পরিচালনা করি। আগুনের মতো দুর্ঘটনায় উঁচু ভবনে জান-মাল রক্ষাসহ নিরাপত্তার বিষয়ে সচেতনতা করতেই এ মহড়া চালানো হয়েছে। সচিবালয় একটা গুর্বত্বপূর্ণ স’াপনা, তারপরও এখানে যদি কোনো দুর্ঘটনা ঘটে তাহলে গেটের সমস্যায় আমাদের বিশেষায়িত গাড়ি সচিবালয়ে ঢোকানো সম্ভব হবে না। বিশেষ করে চার নম্বর ভবনের সামনে আজ মহড়া করা হলো, এর আগেও মহড়া করা হয়েছে। মহড়া পরিচালনার জন্য যেসব বড় গাড়ি নিয়ে এসেছিলাম সেগুলো সচিবালয়ের বাইরেই রাখতে হয়েছে।
শালেহ উদ্দীন আরও বলেন, আমরা খুবই চিন্তিত যে চার নম্বর ভবনে অগ্নিদুর্ঘটনা ঘটলে সেটা মোকাবিলা করা খুবই কঠিন হয়ে পড়বে। সচিবালয়ের ভিতরে যেখানে চারশ গাড়ি পার্কিং রাখার জায়গা রয়েছে সেখানে ১২শ গাড়ি পার্কিং করা হয়। তাই যদি পিক আওয়ারে কোনো দুর্ঘটনা ঘটে তাহলে আমাদের কোনো গাড়ি সঠিকভাবে সচিবালয়ে ঢুকতে পারবে না। সংশিৱষ্টদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে তিনি বলেন, এখনই এটা নিশ্চিত করা উচিত যে কোনো দুর্ঘটনায় ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি যাতে সহজে প্রবেশ করতে পারে। সচিবালয় একটা গুর্বত্বপূর্ণ এলাকা, তাই এখনে ছোট-খাটো ঘটনা ঘটলে এটা বড় আকার ধারণ করবে। এজন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস’া নিতে সংশিৱষ্টদের চিঠি দেওয়া হবে।

শর্টলিংকঃ