সংস্কারের জন্য প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তথ্য চেয়েছে সরকার

অনলাইন ডেস্ক: নদী ভাঙন, ঘূর্ণিঝড়, জলোচ্ছ্বাস, বন্যা, অগ্নিকাণ্ড ও অন্যান্য কারণে ক্ষতিগ্রস্ত বা জরাজীর্ণ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের তথ্য চেয়েছে সরকার। শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে অস্থায়ী গৃহ নির্মাণ, বিদ্যালয় মেরামত ও সংস্কারের জন্য এ তথ্য চাওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার এই সংক্রান্ত অফিস আদেশ জারি করেছে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর। এসব বিদ্যালয়ের তথ্য উপজেলা ও থানা শিক্ষা কর্মকর্তারা অধিদপ্তরকে পাঠাবেন বলে জানানো হয়েছে।

অফিস আদেশে বলা হয়েছে, দেশের বিভিন্ন স্থানে নদী ভাঙন, ঘূর্ণিঝড়, জলোচ্ছ্বাস, বন্যা, অগ্নিকাণ্ড ও বিভিন্ন দুর্যোগে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে থাকে। এর ফলে কোনও কোনও সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বিকল্প বা অতিরিক্ত গৃহ বা শ্রেণি না থাকায় পাঠদান ব্যহত হয়। অনেক সময় খোলা আকাশের নিচে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় শ্রেণি কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়।

আদেশে আরও বলা হয়, জরুরি অবস্থায় শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনা করার জন্য বিদ্যালয়ে অস্থায়ী গৃহ নির্মাণ বা মেরামতের প্রয়োজন হতে পারে। এই অবস্থায় পিইডিপি-৪ এর আওতায় বিদ্যালয় ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে থাকলে এবং পাঠদানের বিকল্প গৃহ না থাকলে শিক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে অস্থায়ী গৃহ নির্মাণ বা মেরামতের জন্য সংশ্লিষ্ট বিদ্যালয়ের বিস্তারিত তথ্যাদি (সংযুক্ত ছক মোতাবেক) এবং ক্ষতির ধরনের ছবি, ভিডিও ক্লিপ, জরুরি ভিত্তিতে প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরে পাঠানোর অনুরোধ করা হল।

 

সোনালী/এমই

শর্টলিংকঃ