সংবাদপত্রকর্মীদের আয়কর ও গ্র্যাচুইটি নিয়ে রুল

অনলাইন ডেস্ক: সংবাদককর্মীরা আয়কর দিবেন এবং এক মাসের গ্র্যাচুইটি পাওয়া সংক্রান্ত বিধান কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেছে হাই কোর্ট।

বুধবার বিচারপতি মো. মজিবুর রহমান মিয়া ও বিচারপতি মহি উদ্দিন শামীমের বেঞ্চ এ রুল জারি করেন। এসময় মন্ত্রিপরিষদ সচিব, তথ্য সচিব ও শ্রম সচিবকে চার সপ্তাহের মধ্যে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা (বাসস) এর কর্মচারী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুজ্জামানের করা রিটের প্রেক্ষিতে রুলটি জারি করা হয়।

এর আগে রিট আবেদনে বলা হয়, আপিল বিভাগের দেওয়া রায় অনুযায়ী কর্তৃপক্ষকেই সাংবাদিক ও সংবাদপত্রের কর্মচারীদের বেতনের উপর আয়কর পরিশোধ করতে হবে। কিন্তু নবম সংবাদপত্র মজুরি বোর্ডে তা চাপানো হয়েছে সাংবাদ কমীদের ওপর।

এছাড়া নবম মজুরি বোর্ডের সপ্তম অধ্যায়ে দুইটি গ্র্যাচুইটি দেওয়ার কথা থাকলেও মন্ত্রিপরিষদের কমিটি একটি মূল বেতনের সমান গ্র্যাচুইটি দেওয়ার সুপারিশ করেছে। এটা স্ববিরোধী।

আপিল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি মো. নিজামুল হককে প্রধান করে ২০১৮ সালের ২৯ জানুয়ারি ১৩ সদস্যের নবম ওয়েজ বোর্ড গঠন করা হয়। ওই বছরের ৪ নভেম্বর সাংবাদিকদের জন্য নবম ওয়েজ বোর্ডের রোয়েদাদের সুপারিশ তথ্যমন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর করেন নবম ওয়েজ বোর্ডের চেয়ারম্যান বিচারপতি মো. নিজামুল হক।

ওবায়দুল কাদেরকে আহ্বায়ক করে ২০১৯ সালের ২১ জানুয়ারি মন্ত্রিসভায় এ নবম ওয়েজ বোর্ড রোয়েদাদ বাস্তবায়ন সম্পর্কিত মন্ত্রিসভা কমিটি পুনর্গঠন করা হয়। পরবর্তীতে গত বছরের ১২ সেপ্টেম্বর গেজেট প্রকাশ করা হয়।

সোনালী/এমই

শর্টলিংকঃ