শ্রীলঙ্কায় যাচ্ছে না বাংলাদেশ

  • 1
    Share

অনলাইন ডেস্ক: শ্রীলঙ্কা সফরে গেলে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে। এ সময়ে টাইগারদের হোটেলের বাইরে যাওয়ার কোন সুযোগ থাকবে না। কিন্তু এ ব্যাপারটি কোনভাবেই বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) মেনে নিতে পারেনি। যে কারণে কঠিন এ শর্ত শিথিলের জন্য লঙ্কান ক্রিকেট বোর্ডকে অনুরোধ করে বিসিবি। তাতে অবশ্য ইতিবাচক সাড়া পায়নি টাইগার ক্রিকেট বোর্ড। তাই সোমবার সংস্থাটির সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন ষ্পষ্ট করে জানিয়ে দিলেন, আপাতত শ্রীলঙ্কা সফরে যাচ্ছে না তামিমরা।

আজ মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৪তম জন্মদিন উপলক্ষে বিসিবি আয়োজিত অনুষ্ঠান শেষে গণমাধ্যমকে এ কথা জানান তিনি।

বিসিবি প্রধান বলেন, ‘শ্রীলংকা আমাদেরকে সফরের বিধি-নিষেধ নিয়ে একটি শর্ত পাঠিয়েছিল। আমরা আমরা সেটি পর্যালোচনা করে দেখেছি ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে থেকে সফর করা সম্ভব না। ওদের জানানোর পর তারা সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে। কিন্তু ওদের সরকারের নিয়ম অনুযায়ী ১৪ দিন কোয়ারেন্টিন বাধ্যতামূলক। এটা মানতেই হবে। এই মুহূর্তে ১৪ দিন কোয়ারেন্টিনে থেকে সফর করা সম্ভব না। ক্রিকেটারদের মানসিক অবস্থা থাকবে না ক্রিকেট খেলার। এজন্য আমরা সফরে যেতে রাজি নই। পরিস্থিতি যখন ভালো হবে তখন আমরা নতুন করে সফর নিয়ে ভাববো।’

এরকম শর্ত না মানার কারণও জানিয়েছেন বিসিবি সভাপতি, ‘সাধারণত কোয়ারেন্টিন ও আইসোলেশন, দুইটা দুই জিনিস বলে আমরা ধরি। ওদের ওখানে ১৪ দিন আসলে আইসোলেশন। অন্যান্য জায়গায় যেটা কোয়ারেন্টিন আছে, সেটার সঙ্গে এটার পার্থক্য আছে। এটা পূর্ণ আইসোলেশন, ঘর থেকেই বের হতে পারবে না। এই অবস্থায় ১৪ দিন ঘরে থাকলে একজন ক্রিকেটারের শারীরিক অবস্থা তো পরে, মানসিক যে অবস্থা হবে, সেটি ফিরে পেতেই অনেক সময় লাগবে।’

তবে বিসিবি বস জানিয়েছেন টাইগারদের পরবর্তী কার্যক্রম সম্পর্কেও। জাতীয় দলের স্কিল ক্যাম্প অব্যাহত থাকবে, নিজেদের মধ্যে ভাগ হয়ে খেলবে প্রস্তুতি ম্যাচও। এর বাইরে ক্যাম্প শেষে শুরু হবে ঘরোয়া ক্রিকেট। এইচপি, অনূর্ধ্ব-১৯ ও জাতীয় দল নিয়ে টি-টোয়েন্টি লিগ আয়োজনেও বদ্ধ পরিকর বিসিবি।

মিরপুরে আজ পাপন বলেন, ‘প্রস্তুতি ম্যাচের পর পরই আমরা ঘরোয়া ক্রিকেট শুরু করতে যাচ্ছি। ঘরোয়া ক্রিকেটে দুটি ভাগ আছে। একটি হচ্ছে আমরা চিন্তাভাবনা করছি যে পাঁচ-ছয়টি দল নিয়ে প্রথমে খেলার জন্য। ছয়টি দল হলে ৯০ জন খেলোয়াড়। যদি এতজন খেলোয়াড় এসঙ্গে সম্পৃক্ত করা যায়, তাহলে সেটা ভালো হবে। মানে যত বেশি খেলানো যায় তত ভালো। ওদেরকে নিয়ে যদি আমরা একটা টুর্নামেন্ট করতে পারি, এটা কর্পোরেট লিগ হতে পারে বা বিসিবির দল হতে পারে।’

সোনালী/এমই

শর্টলিংকঃ