শোককে শক্তিতে পরিণত করার শপথ নেয়ার দিন আজ

  • 8
    Shares

আজ রক্তাক্ত ১৫ আগস্ট, জাতীয় শোক দিবস। ১৯৭৫ সালের এই দিনে একদল বিপথগামী সেনাসদস্যের হাতে স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সপরিবারে নিহত হন। তাঁর দুই কন্যা, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তার ছোট বোন শেখ রেহানা বিদেশে থাকায় প্রাণে বেঁচে যান। সেই ভয়াল পরিস্থিতিতে হতবিহবল জাতি এই নৃশংস হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে সোচ্চার হতে পারেনি ঠিকই, তবে মনে তীব্র ঘৃণা নিয়ে এই ঘটনা যে মেনে নিতে পারেনি সেটাও সত্য।

১৯৭৫ সালের পরবর্তী শাসকেরা এই জঘন্যতম হত্যাকাণ্ড ধামাচাপা দেবার ঘৃণ্য প্রয়াস চালিয়েছে। ইনডেমনিটি আইন করে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার বন্ধ করার হীন ষড়যন্ত্রের পাশাপাশি ইতিহাস বিকৃতি ও দেশকে উল্টোপথে পরিচালনার ব্যর্থ প্রয়াসও চালিয়েছে। এ সময় এক শ্রেণির বুদ্ধিজীবী ও রাজনীতিক বিভ্রান্তির শিকার হয়েছেন। অনেকেই সুযোগ-সুবিধার লোভে পড়েছেন। আর জাতি বঙ্গবন্ধুর ন্যায় নেতৃত্বের অভাব গভীরভাবে অনুভব করেছে। যদিও তার প্রকাশ ঘটতে সময় লেগেছে দীর্ঘ একুশ বছর।

বঙ্গবন্ধু কন্যার নেতৃত্বে শেষ পর্যন্ত মানুষের গণতান্ত্রিক আকাক্সক্ষার বিজয় হয়েছে। নির্বাচিত হয়ে আওয়ামী লীগ সরকার গঠিত হয়েছে জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে। দেশ আবার ফিরে এসেছে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠার ধারায়। এর মধ্যে বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার সম্পন্ন হয়েছে। গ্রেপ্তারকৃত খুনিদের সর্বোচ্চ শাস্তিও হয়েছে। পলাতকদের ফিরিয়ে এনে সাজা কার্যকর করতে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে সরকার। জাতি অধির আগ্রহে সেদিনের অপেক্ষায় আছে। খুনিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তিই এ ধরনের নৃশংসতার পুনরাবৃত্তি রুখতে পারে বলে সবার বিশ্বাস।

কিন্তু ষড়যন্ত্রকারীরা বসে নেই। নানান সঙ্কটের সুযোগে ঘরে-বাইরে নেয়া তাদের একের পর এক অপপ্রয়াস বানচাল করেই ২০২১ সাল নাগাদ মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হতে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আস্থা রেখেছে জনগণ। দুর্নীতি, সন্ত্রাস, জঙ্গিবাদ মোকাবিলার পাশাপাশি করোনাভাইরাস সংক্রমণের মত বৈশ্বিক সঙ্কটেও জাতিকে বলিষ্ঠ নেতৃত্ব দিয়ে চলেছেন তিনি।

এবারের জাতীয় শোক দিবসে জাতি নতুন করে শপথ নেবে স্বাধীনতাবিরোধী ও দেশ-বিদেশের অগণতান্ত্রিক শক্তিকে মোকাবিলা করে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশ গড়ে তোলার। বঙ্গবন্ধুর অসমাপ্ত কাজ সমাপ্ত করতে শোকের পরিবর্তে মুক্তিযুদ্ধের শক্তিতে বলিয়ান হয়েই এগিয়ে যেতে হবে জাতিকে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠার অঙ্গিকারই হোক আজকের দৃপ্ত শপথ।

সোনালী/এমই

শর্টলিংকঃ