রামেক হাসপাতালে প্রতিদিন আনা হবে এক হাজার পিপিই

স্টাফ রিপোর্টার: রাজশাহীতে করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী পাওয়া গেলে তাদের চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালের চিকিৎসা সংশ্লিষ্টদের জন্য প্রতিদিন অন্তত এক হাজার করে ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম (পিপিই) আনা হবে।
হাসপাতাল পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি রাজশাহী-২ (সদর) আসনের সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা এ তথ্য জানিয়েছেন। গতকাল শনিবার দুপুরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজে করোনা শনাক্তের ল্যাব স্থাপন কাজের অগ্রগতি পরিদর্শনে গিয়ে তিনি সাংবাদিকদের এ কথা বলেন।
এ সময় তার সঙ্গে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটনও উপস্থিত ছিলেন। ফজলে হোসেন বাদশা বলেন, আমি এবং মেয়র সাহেব এসেছি কাজের অগ্রগতি দেখার জন্য। হাসপাতালে এখন যে পরিমাণ পিপিই আছে তা দিয়ে এক সপ্তাহ চলছে। আরও পিপিই আসার প্রক্রিয়ায় আছে। উত্তরাঞ্চলের বৃহৎ এই হাসপাতালে আমরা প্রতিদিন অন্তত এক হাজার করে পিপিই আনবো। তিনি বলেন, মেয়র সাহেব এবং আমার ওপর আস্থা রাখেন। আমরা সবাই মিলে কাজ করছি। আমরা একটা টিম হিসেবে কাজ করছি। প্রতিদিন অন্তত এক হাজার পিপিই আনতে যা করা দরকার আমরা করবো।
সিটি মেয়র এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, করোনা পরীক্ষার জন্য রামেকে পিসিআর মেশিন ইতোমধ্যে চলে এসেছে। এখন ল্যাবের কাজ চলছে। আশা করছি, আগামী ১ তারিখ থেকে রাজশাহীতেই করোনা শনাক্তের পরীক্ষা করা সম্ভব হবে। রাজশাহীকে নিরাপদ রাখতে আমরা সবাই চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।
এ সময় তাদের সঙ্গে রাজশাহী সিটি করপোরেশনের প্যানেল মেয়র-১ ও ১২ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর সরিফুল ইসলাম বাবু, রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জামিলুর রহমান, রাজশাহী মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা. নওশাদ আলীসহ সংশ্লিষ্ট চিকিৎসকরা উপস্থিত ছিলেন।
প্রসঙ্গত, করোনা পরীক্ষার জন্য গত বৃহস্পতিবার ঢাকা থেকে একটি পিসিআর মেশিন রামেকে এসেছে। তারপর থেকেই মেশিনটি বসানোসহ যাবতীয় কার্যক্রম শুরু হয়। তবে এখনো কিছু কাজ বাকি রয়েছে। সব কাজ আগামী ১ এপ্রিলের মধ্যে শেষ হয়ে সেদিনই উদ্বোধন করার প্রস্তুতি ধরে রাখা হচ্ছে। রামেকের ভাইরোলজি বিভাগের ল্যাবে মেশিনটি বসানো হচ্ছে। এর জন্য আলাদা চারটি কক্ষ নেওয়া হয়েছে।

শর্টলিংকঃ